Home » Entries posted by জহিরুল হক বাপি
zohir_bapy@yahoo.com'
Entries posted by zohirul hoque bapy

(আমার কিছু কথা …..) লোটাস কামাল ও পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থা প্রসংগ

আমাদের দেশ এখন বিখ্যাত কিসে? নিঃসন্দেহে মন্ত্রী নামের দেবদূতদের মহত কর্মে । বি.এন.পি সরকারের সময় ২/৩ জন মন্ত্রী নিয়ে বিদেশে তদন্ত হয়েছে, হালের আওয়ামী লীগের আবুল হোসেনের কথাতো মহাকাব্য হয়ে গেছে । বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতুর টাকা বন্ধ করে দিয়েছে । এটা প্রায় নিশ্চিত যে আবুল মিয়া অসৎতা করেছে । তারপরও মন্ত্রীত্ব যায়নি । ভাল ভাল […]

কখনও কখনও দিঘীর জলও তৃষ্ঞার্ত থাকে জলে সাতার কাটার আশায়…. তাকিয়ে থাকে পাতাহীন গাছ, কাচা ফল ছাড়ে দীর্ঘশ্বাস । চাদের গায়ে লাগেনা মেঘের কুয়াশা বুকের ভিতর শূন্যতার ক্ষরা রাত হারায় রুপের বালতি, র্নিঘুম এপাশ ওপাশ আমারে তুই খবর পাঠাস এমন বেলায় তাল পাখা হাতে তোমার সিথানে কাটিয়ে দেব ঘুমিও তুমি- স্বপ্নে বনানী যদি আসে তোমরাই […]

Continue reading …

ওয়াবজ সাইটে আগামী ৯ তারিখের ভিতর একাউন্ট খুল্লে এবং তাদের টার্ম (সহজ খুব)পুরণ করলে আপনি হবেন ওয়াবজের একজন অংশীদার । তারা তাদের লাভের একটা অংশ আপনাকে দেবে । ফেবু আর টুইটারের মত নতুন এই সাইটটিকে জনুপ্রয় ও ব্যাবসা সফল করার জন্যই পরিচালকরা এই উদ্যোগ নিয়েছেন । আমি এর সত্য মিথ্যা জানি না । যখন পয়সা […]

Continue reading …

সব ভূলে গেলেও, ভূলে যাওয়ারা করে ইতিহাস রচনা- ভূলে থাকা হয়না আর। নিয়ন বাত্তি জ্বেলে, রংচং-এর জীবন কখনও কখনও হাঠাৎ বাতাস একলা করে, এলোমেলো করে ভিতরের কাব্য। এইখানে নয়!ওইখানেও নয়!কোনখানে? একদিন সময় করে চলিস- সব ভূলে। সহজ নজর খুলে মলিন পোষাকে, চুপ। বন্য জোছনায় হবে আনন্দ উৎসব, স্নান পোষাকহীন আদিম অকৃত্রিম আমরা- সভ্যতা নামের অসভ্যতা […]

Continue reading …

রাস্তায় চাকা ঘর্ষণের মত ঘর্ষণে জম্ম আমার, মর্ম বুঝেনি অনিরাপত্তা জৈবিক নাটকে- বীর্যবান চলে গেছেন তার যে কোন রাস্তায় জলাধার বয়ে গেছেন তার সামাজিক ধারায়। তবুও সবেুজের রং চোখে মেখে আমি রচনা করেছি নিত্য দিন – রাত বা অনেক সময় । সবুজের নৃত্য সত্য উৎসেবের উল্লাসে,অর্জনে পরিচয় পত্রধারীদের চেয়ে আমিও কম নই । হায় প্রেম […]

Continue reading …

এখানে বসে আছি দীর্ঘকাল, আসলেই কি আছি? এখানে বসে আছি দীর্ঘকাল, আসলেই কি আছি? বাতাসের পাখায় ভর করে স্রোত এলে ভেঙ্গে পড়ে স্মৃতি, স্রোত, কুমারিত্ব, স্বপ্ন অথবা ভেঙ্গে পড়া। মাঝে মাঝে এখানেও শহুরে সন্ধ্যা নামে, আলোয়, মাঝে মাঝে এখানেও গ্রামীন রাত আসে, জোনাকীয়। কতদূর এসেছি চলে পথে পথে, কত পথ গেছি ভূলে। স্ত্রী, প্রেমিকা, পুত্র, […]

Continue reading …

ভাঙ্গা জানলা,পাশের নোনা দালান ময়লার স্তুপ, কিছুটা কোলাহলের ভিতর ভেঙ্গে পড়ে নিঃশ্বাস- নিঃস্তব্দ মেসের নোনা ধরা রান্নাঘর। মাকড়সা ঘুরে ঘুরে জাল বুনে- তেলাপোকা কাব্য খোজে উচ্ছিস্টে নিস্তরঙ্গ ভাঙ্গা মেঝে পুরোনো জীবন একজন পুরুষ ভূলে যেতে চায় জীবনের পরাজয় অথবা কিছুটা আনন্দ একজন নারী জিততে চায় জীবনের নিশ্বাস অথবা কিছুটা সঙসার। তারা জানেনি লালনের দর্শন প্রেমহীন […]

Continue reading …

এ ভাবে গল্প শোনা ভালো লাগে না শ্রোতাদের এমনকি ভাল লাগেনা গল্প বলিয়েরও- তবুও অহর্ণিশ নদীর স্রোত, ভূলে বালিতে নাব্যতা খোঁজা। ঈশ্বর যতদিন আত্নার ভিতর ছিলেন অথবা যতদিন মানুষ পশু ছিলনা- জঙ্গলে থাকতো তত দিন সকল সম্পর্কে ছিল নদী উৎসব। আমার মাকে বিয়ের আগে আমার বাবা ও দাদারা দেখে নিয়েছিলেন তার সকল সৌন্দর্য- যদিও বাবা […]

Continue reading …

ফিরে যাবার সময় থাকে না অথচ গল্পটাই ফিরে যাবার নায়ক নায়িকা পরিচালক মূক,বধির ও প্রতিবন্ধী তারা অস্থির হয়ে চলাচল করে নদীর স্রোত পিছে ফেলে তারা তাদের সুরে গান গায় পাখীর সুর চাপা দিয়ে। ফলবতী বৃক্ষরা গল্পটাকে বলবতী করে প্রাকৃতিক নিয়মে ফেরাউনের আবাদ প্রতিটি গৃহে, পথে ও বিদ্যালয়ে মানুষ প্রত্যেকেই মহামানব তাই আকাশের তারা পরাজিত কবিতা […]

Continue reading …

নিরবতা, কুয়াশা চলে যাবে অনির্জনতার কাছে তুমি তার আগেই তুলে নিও ভোরের বকুল প্রতি ভোরে জীবণের ঘরে যোগ হয় একটি বাণী তা পবিত্র ও পুতিগন্ধময় । ঘুম কেটে যাওয়ার আগেই কেউ চলে যাবে দূরে, কেউবা আসবে কাছে। পৃথিবী ক্লান্তিকর ও আনন্দময় উৎসব- যদিও ক্লান্তি ক্রমাগত গ্রাস করে আনন্দ তবুও বকুল ক্রমাগত গন্ধ ছড়ায়, ক্লান্তি আসলে […]

Continue reading …

কখনও ভূল করে ঠিক পথে এলে সূর্য মরে যায় দিশেহারা পথে, কেবল পালানোর তাড়না । গাছেরা কিছুটা নিস্তেজ হলে, পাখিরা সারিবদ্ধভাবে্ উড়তে থাকে, তখন সন্ধ্যা নামে পুনরাগমনে শর্তে। সেই সময় নিশিকন্যাদের ক্ষুধার কথা মনে পড়ে- তারা পথে প্রান্তরে শ্বাস ফেলে দেবতার আশায়। পবিত্র ও সফল জ্ঞানী সমাজপতিরা তাই রাতকে ঘৃণা করে ও অভিশাপদেয় বেশ্যাদের- অতঃপর […]

Continue reading …

দাড়িয়ে থাকা সময়কে গ্রাস করে নেয় অসময় সারি সারি নত মাথা- জয়ি অথচ পরাজিত সব মানুষ্ই ক্রুশবিদ্ধ প্রতিটি সময়ে,গানে অথচ কেউই যীশু বা ঈশ্বরপুত্র নয়- যীশু চলে গেছেন বহুদূরে-না ফেরার দেশে ক্রুশবিদ্ধ মানুষেরা ক্রমাগত ঢুকতে চায়- পৃথিবীর পেটের ভেতর- যেখানে জল, ফল গতি বা ম্যারাথন দৌড় কেবল। মূর্খ কাক শিক্ষকের ভূমিকায়-গরিমায় ঠুকরে খায় শিক্ষিত-অশিক্ষিত সব […]

Continue reading …