রেজওয়ান তানিম

স্বপ্ন পথের পথিকেরা

Decrease Font Size Increase Font Size Text Size Print This Page

যদি কোনদিন পৃথিবীর পথ ধরে-
হেটে চলতাম, এই আমরা দুজনে
অনাদিকাল ব্যাপী! কপোতের মতন,
ডানা দুটি মেলে দিয়ে আদিগন্তে! আর
থাকতাম শুধু তুমি আমি যে সেথায়,
আর কেউ পেত না ঠাঁই। হঠাৎ দুটি-
অচেনা পশু ডাক শুনে তোমার চিত্ত
হত অধীর। মাথা লুকোতে এই বুকে!
আবার শুনতে পাখি ডাক। মুগ্ধ হয়ে
বলতে,“ওটা কী পাখি এমন ডাকছে?”

দীঘল রাত! সেই বনপথ-হেটেই
যেতাম শুধু;অবিশ্রান্ত ঝিঁঝিঁর ডাক-
শেয়ালের হাক,কোলা ব্যাঙের ওই
ঘ্যাঙর ঘ্যাঙ-শুনতে হত। একঘেয়ে
তবু লাগত না! কারণ সব কিছু যেন,
আমাদের জীবনে নতুন। তবে হেঁটে
যেতে যেতে তুমি হতে ক্লান্ত! আমি
সমস্ত বনানী তন্ন তন্ন করে খুঁজে
তোমার জন্যে এনে দিতাম জল!আর-
সে জলে তুমি মিটিয়ে নিতে তৃষ্ণা!

ক্ষনিকের বিশ্রাম! কোন চাঁদনী রাতে
চন্দ্ররাণী ছড়িয়ে দিত আলো!তোমার
রুপমা সে আলোকে ধারণ করে হত,
উজ্জ্বল।সে আলোত অবগাহন করে-
আমরা এগোতাম সামনে।হাটতাম
বনানীর সীমা ছেড়ে দূরে-ওই দূর
পাহাড় চূড়ায়! স্নিগ্ধ তার ঝর্ণাধারা-
তোমার চোখ দুটিকে কেড়ে নিত।তাই-
তুমি বলতে-“ওর জল আমার চাই”।
আমি অধীর হয়ে ছুটতাম, তোমায়
এনে দিতে ঝর্ণার জল। পথিমধ্যে-
ক্লান্তি এসে ভর করত এই আমাতে!

তখন বিশ্রাম নিতাম। দেখতাম এ
বিধাতার কোন সৃষ্টি!(তোমার লাবণ্য)
আর এভাবেই পেতাম নতুন পথে
চলবার শক্তি। এভাবে চলতে হত
অনেকটা পথ,অবশেষে শৈলধারা-
আমার পায়ে দিত ধরা। তোমার সেই
আনন্দ কে দেখত;সহাস্যে তুলে জল
মাখতে চোখে মুখে-ধুতে তব অধর-
চিবুক নেত্র পল্লব।তখন আমার-
বিমুগ্ধ হৃদয় সুন্দরকে দেখে নিত;
একান্ত একাগ্রতায়।(যদি হেটে যেতে
পারতাম-একদিন এই মধু পথে!
কোনদিন,কোন কাজের একটু বিরামে।
তোমায় এভাবে পাশে নিয়ে কোনদিন!
তাং:০৮-০৫-০৭

উৎসর্গ : বাংলা কাব্য জগতের নির্জনতম কবি জীবনানন্দ দাশকে ।

শৈলী.কম- মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফর্ম এবং ম্যাগাজিন। এখানে ব্লগারদের প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। ধন্যবাদ।


10 Responses to স্বপ্ন পথের পথিকেরা

  1. রাজন্য রুহানি জুন 24, 2011 at 4:56 অপরাহ্ন

    বাহ, বেশ। লাগলো ভালো অশেষ।
    %%- :rose: %%-

  2. mannan200125@hotmail.com'
    চারুমান্নান জুন 25, 2011 at 8:12 পূর্বাহ্ন

    তখন বিশ্রাম নিতাম। দেখতাম এ
    বিধাতার কোন সৃষ্টি!(তোমার লাবণ্য)
    আর এভাবেই পেতাম নতুন পথে
    চলবার শক্তি।
    ===========বাহ েবশ লাগলো :rose:

  3. obibachok@hotmail.com'
    অবিবেচক দেবনাথ জুন 25, 2011 at 1:37 অপরাহ্ন

    দীঘল রাত! সেই বনপথ-হেটেই
    যেতাম শুধু;অবিশ্রান্ত ঝিঁঝিঁর ডাক-
    শেয়ালের হাক,কোলা ব্যাঙের ওই
    ঘ্যাঙর ঘ্যাঙ-শুনতে হত। একঘেয়ে
    তবু লাগত না! কারণ সব কিছু যেন,
    আমাদের জীবনে নতুন।

    এতো স্বপ্নের রাজ্যে তার হাত ধরে চলার এক আনন্দঘন মুহুর্ত । :rose:

  4. roy.sokal@yahoo.com'
    অরুদ্ধ সকাল জুন 25, 2011 at 2:46 অপরাহ্ন

    কবিতার ভাষা সুন্দর
    ভাব সুন্দর

  5. Khn.Rubell@gmail.com'
    Khondaker Nahid Hossain জুন 27, 2011 at 4:19 পূর্বাহ্ন

    ভালো লাগলো। কবি যে আবহ সৃষ্টি করতে চেয়েছে কবিতায় তাতে সে সফল। তবে দু এক জাগায় রোমান্টিকতার প্রকাশ হয়তো আর একটু তীব্র হতে পারতো।
    জয় হক কবির কবিতার।

    • tanim.tech@yahoo.com'
      রেজওয়ান তানিম জুন 27, 2011 at 1:59 অপরাহ্ন

      ধন্যবাদ নাহিদ । আসলে এই কবিতায় আমি অতি আবেগ অথবা রোমান্টিকতা পরিত্যাগ করেছি সজ্ঞানে । কারণ, এখানে পাঠকের অনেক স্পেস আছে কল্পনা করে নেবার, রোমান্টিক বিষয় গুলো ।

      আর আগামীতে অনেক রোমান্টিক কবিতাই পাবেন ।

You must be logged in to post a comment Login