‌কবিতা

 শৈবাল

মেনিক শহর ছেড়ে …

আলোচনা -সমালোচনায় বাড়ামিতে ভাঁড়ামিতে কথায় কথায় অযথায় ন্যাকামিতে ব্যাকামিতে বাচাল শহরের মাথাটা বেশ তপ্ত হয়ে গেছে , সেই উষ্ণতায় আমারও দেহ শৈলটা গলছে , যেই রঙিন প্রজাপতিরা অভিমানে নির্বাসনে আমিও পালাবো হুট করে তাদেরই নিমন্ত্রণে , ঘাস ফড়িং এরা কোথায় সব লাফিয়ে হারায় – পাখিরা লুকালো যে জঙ্গলে আমি যাবো সেই দলে । এক জোছনায় […]

 অরুনাভ পাভেল

থমকে যাওয়া দিনগুলি

আজ আমার নিশ্চল দশা, বিছানায় শুয়ে বসে দিন কাটাই ঘুম নামক অদ্ভুত জিনিসটা বিজলি বাতির মত আসে আর যায়। তবুও আমার দিন কাটছে, কেটে যাচ্ছে বৈকি। আলো আধার স্বপ্ন আর পরাবাস্তব ঘুরে ঘুরে আমার দিন কাটছে। মাঝে মাঝে চিৎকার করে বলতে ইচ্ছে হয়, আমি আর পারছি না কিন্তু বলতে গিয়েও বলতে পারি না, না বলতে […]

 সরদার খালেদ

স্বর্ণ নদী

একটা নদী, একটু বেঁকে চলে গেছে কিছু দূর, অতঃপর মিশে গেছে নদীর সাথে, কিংবা নদীই মিশে গেছে ভূমির সাথে । এ নদী বড় অদ্ভুত – উঁচু দু-পাড়ে কাঁশবন, মাঝে টিঁলা , চারিদিকে বাতাস শনশন, তবু কাঁশবনে লাগেনা দোলা । নদীতে বয়ে চলে বহুরুপি স্রোত, উন্মত্ততা গ্রাস করে নেয় মৌনতাকে, যদি কেহ দেয় ডুব, রচিত হলে […]

 আজিজুল

এসেছি

এসেছি

এতকাল শেষে এতটুকু স্নিগ্ধ পরশ পেতে আমি এসেছি। আমি এসেছি, দেখতে কি পাও- “এই আমি”! হাজার যন্ত্রনার মাঝে, নাগরিক ব্যাষ্ততার ভিড়েও তোমরা একসাথে বসে প্রাথ’না করেছিলে; আর করেছিলে বলেই আমি এসেছি! কই? হাত বাড়াও! মিলাতে-মিলিতেই যে আমি এসেছি। কালো ধোয়া আর অসহ্য শব্দ যন্ত্রণার ভিড়ে ঘিঞ্জি বাড়িটার ওই ক্যাট ক্যাট করা রাগী-দজ্জাল বাড়িওয়ালাটা কি জানে […]

 শৈবাল

কথোপকথন :এপিঠ ওপিঠ

এপিঠ : এক প্রস্রবণের পত্তন হয়েছিল সেই কবে জঠর কন্দরে কিন্তু একটাদেহ দৈঘ্যও অতিক্রম হলো না পুরো জীবন ধরে । ওপিঠ : বুঝেছি হৃদপিণ্ডের কথা বলছো তো সে তো সেচ করছে শেষ কোষ পর্যন্ত । এপিঠ: যে গোলাপী পাখি জন্ম থেকে পাখসাটলো কালছে হলো তবুও খাঁচায় পড়ে রইল । ওপিঠ: ফুসফুস ! সে তো লোহিত […]

 জুলিয়ান সিদ্দিকী

সম্ভাবনার মরিচীকা

খরাদহে পুড়ে গেলে কোথা যে হারায় তার সবুজের আলোয়ান মৃত্তিকার কোলে কাঁদে ধূসর সময়, বসন্তরা হেঁকে যায় নিদ্রাহীন চাঁদের আলোয়, প্রেম তবু সুদূরের মাঝি। মঙ্গাক্রান্ত শীর্ণ মায়ের বিশুষ্ক স্তন চুষে চুষে ত্যাক্ত শিশু হেলে পড়ে নিবিড় ধূলায় বিশুষ্ক খড়ের হাহাকারে ক্ষুৎ-পিপাসা বাড়ায় অযাচিত ক্লান্তি; শ্রান্তিতে শ্রাবণের মেঘ হিমালয়ের কোলে বুঝি স্থবির কৃষাণের শ্রমিক-হৃদয় শঙ্কার ছিছিক্কারে […]

 আহমেদ মাহির

কিশোরটি !

এক পত্রিকার রিপোর্টার আমি ; পত্রিকাটির নাম বলছি না । আমার ‘রিপোর্টার লাইফ’ আজ বহু বছরের সে সূত্রে রিপোর্টও করা হয়েছে বহু করেছি সাধারনধর্মী রিপোর্ট আবার ব্যতিক্রমধর্মীও… আশুঃ ঈদ উপলক্ষে আমার সাধারন রিপোর্টগুলির পাশাপাশি চালাচ্ছিলাম এক ব্যতিক্রমধর্মী রিপোর্টের কাজ । রিপোর্টের নাম – ‘হাসিমুখী মানুষের গল্প’ । উদ্দেশ্য ছিল, ঈদের আনন্দের সাথে বারতি কিছু আনন্দ […]

 আজিজুল

আমি রুদ্র হতে চাইনি

আমি রুদ্র নই, একফালি চাদও নই যে কবিতা’র জন্ম দিবো। অদ্ভুত খেয়ালী এক মানুষ আমি। আমি কবি নই, কষ্টের ছন্দে কবিতা লিখি। বিশ্বাস করো- আমি কবি নই। আমি রাজপথে উত্তাল ঢেউয়ের মাঝে সম্মিলিত সামাজিক গোষ্ঠির এক জীবন্ত প্রানী যেখানেই মানুষের সংগা আছে- আমি সেখানেই যাই ছুটে, আবিরাম জোৎস্নায় তাই স্বাধীনচেতা কবিরা আমায় কবি বানিয়ে দিলে […]

 অরুনাভ পাভেল

মধ্য রাতের গল্প

চেনা এই শহরে রাতজাগা অনেক পাখি উড়ে ডানা ঝাপ্টে তারা আমাকে জানিয়ে যায় আমি এখনো জেগে আছি, জেগে জেগে স্বপ্নের জাল বুনে চলেছি। দুরন্ত স্বপ্ন গুলো ছুটছে ঝড়ের বেগে কেমন জানি দিশেহারা, বাইরে নিস্তব্ধ আকাশ জ্বলছে কিছু তারা, নির্ঘুম রাতে একটানা ডেকে চলে ঝিঝিপোকারা।

 রিপন কুমার দে

মা

মা

[বি:দ্র: পোস্টটি ২০০৯ সালের “মা” দিবসে প্রথম প্রকাশিত] [আজ মায়ের সাথে অকারনে রাগ করলাম। অনেকটা ইচ্ছে করেই। আমার মা আমার থেকে হাজার মাইল দুরে। প্রতিদিন আমার ফোনের জন্য অপেক্ষা করে বসে থাকেন মা। না দিলে ধৈর্য্যহারা হয়ে নিজেই করে বসেন। মা, এত ভালবাসা কেন তোমার? এত কষ্ট দেই, তারপরও ভালবাসা ফুরায় না কেন তোমার? রাগারাগির […]

 শৈবাল

দৈনিক “স্বপ্ন প্রকাশ”

চরকায় ঘুরছে চিন্তাসমগ্র চক্রাকারে আড়ষ্ট ক্রমাগত করোটির কারাগারে , তাই তোমার আমার অস্থিরতা নিনাদ করে কুঁচকানো কপালে । চাই একটি দৈনিক “স্বপ্ন প্রকাশ” ব্যক্তিগত সম্পাদনায় প্রচার হবে স্বপ্নগুলো , কালো শিরনামে আর রঙিন বিজ্ঞাপনে যা ছিল উপেক্ষিত অবহেলায় বাস্তবতায় , আর হবেনা পাণ্ডু ;হলুদ সাংবাদিকতায়, তাহলে বেশ হকার হয়ে জানিয়ে যাব তোমার আমার খেয়ালগুলো স্বপ্নাহত […]

 শৈবাল

নস্টালজিআর আকাশ

নস্টালজিআর আকাশ … শৈবাল অনেকদিন ধরে অনেক পরিবর্তনের পরে পরিবর্তনেরও পরিবর্তন হয়েছে অনেকটা , তবে কিছু অনুভূতি বেশ অবিকৃত থেকে পুরনো হতে থাকে ;প্রচীন ঈশ্বরমূর্তির মত । যেমন আমার ছেলেবেলার আকাশ তাকিয়ে থাকতাম অপলক দৃষ্টিতে এক ঝাঁক কাক উড়ে গেলে ভাবতাম সব কাক একত্রে বুঝি ;ভয়ঙ্কর আধাঁর আঁকে আর ভোর হতেই আধাঁর ভেঙে কাক হয়ে […]