অরুদ্ধ সকাল

যেখানে রুপের দামে সুখ বিলাতে হয় আদিম খেলায়

Decrease Font Size Increase Font Size Text Size Print This Page

এক.

সন্ধ্যে নেমে পড়লো বলে।
সিথী তবুও দাড়িয়ে আছে ব্রীজের পাশে। হাতের ব্যাগটা সায় দিচ্ছে ঘর থেকে পালিয়েছে ও; সন্ধ্যের আকাশের ঘোলাটে রঙ্গের মতো হাত পা অবশ হয়ে আসছে ওর।
নীল কি তবে আসবে না!
ভালবাসার মোহে ঘরছাড়া সিথী কি আজ জীবনের পাথরঘাটায় ধাক্কা খেয়ে থমকে যাবে? নাকি গোত্তা খাওয়া ঘুড়ির মতো মাথা উল্টে মৃত্তিকায় আছড়ে পড়বে?
ওর ভেতরের সিথীটা বলেই চলেছে বারবার;
কি করলে তুমি সিথী? কার জন্য ঘর ছেড়েছো? কিসের আশায় বাবা মার মুখে আধাঁর লেপটে দিলে? যাকে ভালবেসে হৃদয় দিলে তার প্রতিদান কি তবে আজকের এই অবহেলা? সিথী এ,কি করলে তুমি?
শ্রান্ত সিথী ভাবনার আঙ্গিনায় ব্যাথার চারাগাছ দেখতে পাচ্ছে; স্পষ্ট কাটা তারের বেড়ায় মুড়ে যাচ্ছে চারপাশ। ভালবাসা কি নেশা? এ কেমন নেশা?

দুই.

সিথী হাটাপথে সন্ধ্যের অন্ধাকার গায়ে মেখে মনের আকাশে তুমুল ঝড়ের আন্দোলন করে, শেষে বাড়ি ফিরবে বলেই ভাবলো। একটু একটু করে বিষাদ বনের ভেতর ডুবে গেল ওর মনটা।
সত্যিই তো এ -কেমন ভালোবাসা; নীল এমন কাজ করতে পারলো!!
বিভাস কোচিং সেন্টার এর সামনে শেষ ব্যাচের ভীড়ে সুদীপ দাড়িয়ে মুখে ব্যাঙাচির মতো একটা ভাব;
সন্ধ্যে পথে সিথীকে দেখে বলে বসলো কি,রে বাক্সপেটরা হাতে করে কোত্থেকে এলি না,কি পালাচ্ছিলি?
কি বলবে সিথী ‘থ’ খাওয়া মনের ঘরে তখন যে শুধু একটাই ঝড় নীল আর আসবে না !! সত্যি আসবে না ঠায় দাড়িয়ে রইলো কিছুক্ষণ ও তারপর আবার হাটা শুরু করলো সুদীপ পিছু পিছু এলো সিথী দাড়া;
সিথী দাড়াবে কি ? লজ্জার কাটা চারপাশে তখন ওকে ঘিরে রেখেছে।
সুদীপ পথ আগলে বললো সিথী কোত্থেকে এলি? সুচিত্রা সেনের মতো করে চোখ গোল করে বললো ভালবাসাকে কবর দিয়ে এলাম;
নতুন কোন বাংলা সিনেমা দেখেছিস মনে হচ্ছে; ডায়লগ মুখস্থ হয়ে গেছে দেখছি; সত্যি করে বলতো কি হয়েছে আর কি কবর দিয়ে এসছিস?
ভালোবাসা কি কবর দেয়া যায়? ভালবাসার কি মৃত্যু ঘটে? ভালোবাসা থেকে যায় পরতে পরতে শাড়ীর ভাঁজের মতো। ওটা তুলে রাখলে দীর্ঘ বছরেও একটা স্নিগ্ধ আমেজ থাকে তবে সেখানে তাতে যত্ন-আত্তি লাগে; সেই রকম একটা ভালবাসাকে কি কবর দিয়ে দিতে পারবে সিথী। হয়তো দিতে হবে যদি কিনা ভাবনার আকাশে নীল তাকে বিকিয়ে দেয় ভোগের হাটে।

তিন.

নীল আসবে না; নীল আসবার পাত্র নয়; সিথীর সিথীতে সিঁদুর সে পড়াবে না তার যা নেবার তা নিয়ে নিয়েছে এখন ভালোবাসা ভোগের হাটে বেচে দেবে সে;
এই সোডিয়াম লাইট সন্ধ্যেয় নীল বারান্দায় নেমে আকমল পাঠান কে ফোন দিয়ে বললো বাবু মালটা রাস্তায় পড়ে আছে কাউকে পাটিয়ে নিয়ে আসুন না।
নষ্টনীড়ের মানব সন্তান এরচে আর কি অবদান রাখতে পারে নষ্ট জগতে ভালবাসার ঘায়ে ঘর ছাড়া সিথী প্রেমের ফাঁদে আটকে যাওয়া শিকার সে; নীলের মতো শিকারীর হাতে সে কাঠপুতুল
তাই তো এই সন্ধ্যেয় পথে পথে হাটছে তার হেটে যাওয়া আধারের সাথে মিশে যাওয়ার মতোই আর তাই এ সন্ধ্যেটা ঘুমোট আর কালো আস্তরনের পুতুল।
সুদীপ পেছন থেকে নাই হয়ে গেছে সিথী একা একা হেটে চলেছে একটা ভয় আর একটা আঘাতকে সঙ্গী করে। হঠাৎ গাড়ির ব্রেকে সচকিত হয়ে পিছু তাকালো………
গাড়ী ওকে উঠিয়ে নিয়ে গেল অবশ করে দিয়ে; ওর চিৎকার কন্ঠ ছেড়ে বেরুতে পারলো না। ওর ব্যাগ পড়ে রইলো পথের ধারেই সিথী অবশ হয়েই ভোগের রাজ্যে এসে পড়লো।
নীলের নীল ছোবলে সিথী লাল-নীল আলোয় কাপানো আদিম উন্মুখ মানবী হবে আজ তারই আয়োজন চলছে। হায়!! ভালোবাসা কি এমনই হয় সিথী ফিরে আসবে কি করে ও তো নষ্টের নষ্ট নীড়ে আটকে গেছে এই ভালোবাসার টানে।

চার.

দেয়াল থেকে খসে পড়ছে পোষ্টারটা। বৃষ্টির তান্ডবে ধুয়ে মুছে যাচ্ছে হারানো বিজ্ঞপ্তিটা।
সিথী হারিয়ে গেছে নেই।
সিথী নিখোজ !!
সুদিপ বোবা বনে গেছে যেন ওর সামনে দিয়েই তো শেষ বারের মতো বলোছিলো ভালবাসা কবর দেয়া যায়; ভালবাসা কবর দিতে গিয়েই কি সিথী কবর হয়ে গেল।
সুদীপ সেদিন ফেরালে হয়তো সিথী হারাতো না; কিন্তু মনের গুনগুন প্রজাপ্রতি তো অভিমানের পয়সা বুক পকেটে রেখে দিয়েছিলো; বলেছিলো যে তোকে ঘেন্না করে তার কাছে যাস নে; বোকার চড়ক গাছ কে কি তখন ভেবে দেখতে অতলে যেতে হতো। ভালোবাসার ওপার পাড়েই ঘৃণা থাকে; এপার থেকেই সে সুবাতাস অনুভব করবে কি করে।
সিথী আত্নহত্যা করেছিলো এই ভাবনা শুধু সুদীপ না সবাইকে ভাবতে সাহায্য করেছিলো ওর পাগলামী দেখে।
একসময় সবাই ভুলবার পথে সুর তুলেছে গেছে সিথী আকাশে উড়ে; নেই ওর কথা দেয়ালে সেটে নেই ডায়েরীতে উঠে নেই;
নেই, নেই খাতার সুচীতেও; কেননা ও তো রয়ে গেছে এখনও!!
সভ্য সমাজের চিত্রকর ওকে নিয়ে ছবি আঁকে। সভ্য সমাজে অনেক কদর তবে সেটা দেহবিক্রীর এক বাজারে সেখানেও বিল্মপত্রে ঠাকুর কিন্তু পা পড়েনা সিথীর ও তো অর্জিত পৃথীবিকে নিজের করে পূজো করতে চেয়েছিলো তাই ধূপে বিষাক্ত গন্ধ ছড়িয়েছে। সিথীর পৃথিবী এখন সোডিয়াম সন্ধ্যের মতোই;
যেখানে রোজ ভালোবাসা বিক্রি হয়; যেখানে রুপের দামে সুখ বিলাতে হয় আদিম খেলায়।

——————————-০———————————

শৈলী.কম- মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফর্ম এবং ম্যাগাজিন। এখানে ব্লগারদের প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। ধন্যবাদ।


9 Responses to যেখানে রুপের দামে সুখ বিলাতে হয় আদিম খেলায়

  1. সাহাদাত উদরাজী এপ্রিল 12, 2011 at 1:37 অপরাহ্ন

    মাথার উপর দিয়ে গেছে। সিথী নাকি সীঁথি!

  2. রাজন্য রুহানি এপ্রিল 12, 2011 at 2:51 অপরাহ্ন

    গল্পের ভিতর কাব্যিক অলঙ্কার গল্পকে আলাদা মাত্রা দিয়েছে; আলাদা গন্ধ।

    • roy.sokal@yahoo.com'
      অরুদ্ধ সকাল এপ্রিল 13, 2011 at 12:51 অপরাহ্ন

      ধন্যবাদ
      চেষ্টা করি সেটা যখন একটু হলেও হয় তখন ভালো লাগে।
      ভালো থাকুন
      বৈশাখি শুভেচ্ছা

  3. imrul.kaes@ovi.com'
    শৈবাল এপ্রিল 12, 2011 at 4:07 অপরাহ্ন

    সকাল’দা পড়লাম । মনে টান লেগেছে ।

  4. rabeyarobbani@yahoo.com'
    রাবেয়া রব্বানি এপ্রিল 13, 2011 at 2:19 পূর্বাহ্ন

    ভালো লাগল। অনেক উপমা, লাইন অসাধারণ। তবে কিছু কিছু জায়গায় সাধু ভাষার প্রয়োগ আমার কাছে বেমানান লেগেছে,মনে হয়েছে সাধু আর চলিত ভাষা মিশে গেছে।
    তবে এই কথা স্বীকার করতেই হবে।আপনার উপমাগুলো অনন্য।

    কিন্তু মনের গুনগুন প্রজাপ্রতি তো অভিমানের পয়সা বুক পকেটে রেখে দিয়েছিলো;

    :-bd

    • roy.sokal@yahoo.com'
      অরুদ্ধ সকাল এপ্রিল 13, 2011 at 12:54 অপরাহ্ন

      ধন্যবাদ
      ঠিকই বলেছেন এক বসাতে লিখেছি তো তাই এমনটা হয়ে গেছে।

      বৈশাখী শুভেচ্ছা

You must be logged in to post a comment Login