মেঘ

মেট্রোদিন

Decrease Font Size Increase Font Size Text Size Print This Page

সকাল আটটা দশ

ঘড়িতে এ্যালার্ম দিয়ে রাখার পরও অপলার ঘুম ভাঙতে আজ দেরি হয়ে গেছে। গভীর ঘুমের অতলে তলিয়ে থাকা অপলার কানে এ্যালার্মের সুরেলা আওয়াজ ওর ঘুমের কোন বিঘ্নই ঘটাতে পারেনি। জানালার পর্দার ফাঁক গলে রোদ যখন ওর চোখ বরাবর পড়ে বেলা বাড়ার কথা জানান দিল তখন সত্যি বেশ দেরী হয়ে গেছে। রোদ পড়াতে অপলার গাঢ় ঘুমের সূতো ক্রমশ ছিঁড়তে শুরু করল। অপলার শোবার ঘরের তিনটে দেওয়ালের রঙ দুধ সাদা আর একদিকের দেওয়ালের রঙ বাদামী। সেই দেওয়াল জুড়ে বড় দেওয়াল ঘড়িটা হেলে দুলে জানান দিচ্ছে সকাল আটটা বেজে দশ। ঘড়িতে চোখ পড়তেই অপলার মস্তিষ্ক দ্রুত সচল হয়ে গেলো। বিছানা ছেড়ে অপলা এবার দুদ্দার ছুটতে শুরু করেছে।

কিউবিকলখ্যাঁচাকল

লেভেল পনের’র বাটন প্রেস করে লিফটের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে অপলা। লেজার কাট চুলে মুখের একধার ঢেকে থাকলেও ফর্সামুখের অন্যদিকের ঋজু ভাব বলে দেয় অপলা সরকার এখন পুরোদস্তুর কর্পোরেট মেজাজে। আইডি কার্ড সোয়াপ শেষে, কাঁচের দরজা ঠেলে কিউবিকলে নিজেকে পুরে নিতে নিতে অপলার কপালে বিন্দু বিন্দু ঘাম জমে গেছে। খুব জোড় বাঁচা গেছে আজকের মতো। কাল থেকে আরও এলার্ট হতে হবে ওকে।

অপলার প্রমোশনটা হয়েছেই মাস দুয়েক। টিম লিডার হয়ে যাওয়াতে কাজের চাপ যেমন বেড়েছে তেমনি নতুন ডেজিগনেশন পাওয়াতে অপলার কাজের প্রতি মনোযোগ আগের থেকে অনেক বেশী। কাজের ডেডলাইন ধরে এগোতে গিয়ে অনেক সময়ই খেয়াল থাকে না অপলার যে, বার কি চৌদ্দ ঘন্টা তাকে কাজ করতে হচ্ছে। প্রায় সময়ই তাই বাড়ি ফিরতে বেশ রাত হয়ে যায়। অবশ্য এই যে অপলা এখন কিউবিকলের খাঁচাবন্দী, এখন তার মাথায় প্রোজেক্ট, টিমওয়ার্ক, লিডারশিপের মিক্স মশলা ছাড়া বাড়িঘরের চিন্তা একেবারেই নেই। নতুন প্রোজেক্ট নিয়ে অপলা সরকার কিছুক্ষণের মধ্যেই টিম মিটিঙ শুরু করবে।

রাত সাড়ে দশটা

অপলা আজকের মত বেশ তাড়াতাড়ি কাজ গুছিয়ে এনেছে। আজকের মত আর নো ওয়ার্ক। প্যাক আপ সব। এখন একটু একটু টায়ার্ড লাগছে। লিফটে নামতে নামতে হঠাৎই মনে হলো আজও সারাদিনে একবারও শোভনকে ফোন করা হয়নি। লাঞ্চ কি নিয়েছে, ফিরেছে কখন সেটাও জানা হয়নি কাজের চাপে। সেলফোনে ট্রাই করতে গিয়ে শোভনের ফোন বন্ধ পেলো ও। কর্পোরেট খোলস ছিঁড়ে মধ্যবিত্তের টেনশন ঘিরে ধরছে অপলাকে। মনে পড়ছে, দেরিতে ফেরার জন্য প্রায়দিনই শোভনের গম্ভীর মুখ, কথা কাটাকাটি, দুজনের দুদিক ফিরে ঘুমানো আর সকালে কেউ কারো মুখ না দেখে বেরিয়ে পড়ার আরেকটি রুটিন ওয়ার্কের শুরু হতে যাচ্ছে কিছুক্ষণ পরই।

শৈলী.কম- মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফর্ম এবং ম্যাগাজিন। এখানে ব্লগারদের প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। ধন্যবাদ।


20 Responses to মেট্রোদিন

  1. rabeyarobbani@yahoo.com'
    রাবেয়া রব্বানি জুন 27, 2011 at 2:15 পূর্বাহ্ন

    মেঘ আপু,
    আমার প্রিয় কবির পদার্পণে শুভেচ্ছা স্বাগতম।আপনার “অসুখকাল” কবিতাটির জন্য আপনাকে পুরষ্কৃত করা উচিত। :-) ।
    অণুগল্পটাও ভালো লাগল।
    প্রথম পোষ্টের জন্য সালাম।
    :rose: :rose:

  2. mamunma@gmail.com'
    মামুন ম. আজিজ জুন 27, 2011 at 7:04 পূর্বাহ্ন

    এ কোন মেঘাপু?
    একজনকে চিনতাম, সামহয়্যারে লিখতেন সেই তিনি কি?

    গল্পটা পরিচ্ছন্ন, বাস্তববোধ। কোন টুইস্ট মুইস্ট এর বালাই নাই।
    পড়ে গেলাম এক নাগাড়ে।

    • megh613@gmail.com'
      মেঘ জুন 27, 2011 at 3:17 অপরাহ্ন

      :) আমি সেই মেঘাপু নই মানে সামুর মেঘকন্যা লোচন নই। এমনিতে ব্লগিং করি চতুর্মাত্রিক ব্লগে।
      অণুগল্পে আসলে টুইস্ট দিতে আমি খুব একটা পারি না। গল্পও কম লিখি। আপনার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

  3. রাজন্য রুহানি জুন 27, 2011 at 7:32 পূর্বাহ্ন

    শৈলীতে আগমনের জন্য শুভেচ্ছা।
    :rose:
    অণুগল্পের এক্সপেরিমেন্ট হচ্ছে শৈলীতে; ভিন্ন বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন শব্দের খেলা, ভাবমধুরতা, কাব্যমগ্ন বাক্যের ঢেউবর্ণিল চটুলতা, আলাদা গতিময়তা ইত্যাদি। বেশ কয়েক দিনে এসব পাঠে আমি উচ্ছ্বসিত এবং সেই সাথে আনন্দিতও। বাংলা সাহিত্যে অণুগল্পের স্থানটা বোধকরি পোক্ত হবে অচিরেই।
    ……..
    আপনার অণুগল্প যেন ভাষাময় খন্ড খন্ড স্থিরচিত্র; একটির সাথে আরেকটির সুক্ষ্ম যোগসূত্র তৈরি করে প্রাণময় চলচ্চিত্র আবহ, মনের পর্দায়।
    ………
    শান্তি।

    • megh613@gmail.com'
      মেঘ জুন 27, 2011 at 3:18 অপরাহ্ন

      রাজন্য রুহানি, ধন্যবাদ। অনেক দিন আগে রেজি করেও আসতে আসতে অনেক দেরি করে ফেলেছি তবে আপনাদের পেয়ে কিন্তু ভালো লাগছে।

  4. mannan200125@hotmail.com'
    চারুমান্নান জুন 27, 2011 at 8:59 পূর্বাহ্ন

    :-bd :-bd :-bd
    ভালো লাগলো, :rose:

  5. obibachok@hotmail.com'
    অবিবেচক দেবনাথ জুন 27, 2011 at 10:23 পূর্বাহ্ন

    প্রথমে আমার শুভেচ্ছা রইল শৈলীতে শুভ পদার্পনে।অনুগল্পটি ভালো লাগল। :rose:

  6. sokal.roy@gmail.com'
    সকাল রয় জুন 27, 2011 at 10:35 পূর্বাহ্ন

    অপলাকে নিয়ে লেখা প্রথমেই আমার বিস্ময়তা !!

    আপনার প্রতিটি লেখাতেই ভিন্ন ভিন্ন আমেজ থাকে যেটা প্রশংসনীয়

    মেঘ থেকে মেট্রোদিন শিরোনাম বদলে দিলেন

  7. imrul.kaes@ovi.com'
    শৈবাল জুন 27, 2011 at 5:19 অপরাহ্ন

    স্বাগতম শৈলীতে ।

  8. juliansiddiqi@gmail.com'
    জুলিয়ান সিদ্দিকী জুন 29, 2011 at 7:29 অপরাহ্ন

    বাইশ বছর পরে একটা পোস্ট দেওনের কারণে আপ্নেরে মাইনাস। X-(

    গল্পের কথা বলতে হইলে আপনি মুক্ত গদ্যের বৃত্ত থাইক্যা বাইর হইতারেন্নাই। যে কারণে অনুগল্প বা কিপ্টুস গল্প। গল্পের অন্তর্নিহিত গল্পের কথা কইতে গেলে বলতে হয় দুইজন চাকরি করা সংসার সন্তানের জন্য ঠিক সমর্থন যোগ্য না। সেই ক্ষেত্রে আজ সে অফিস করলো তো কাল ও অফিস করবে। নয়তো যে কোনো একজন চাকরি করবে। অন্যজন সংসার সন্তান সামলাবে। এমনটা হইলে খানিকটা শ্বাস ফেলা যাইতারে। নয়তো কর্পোরেট লাইফের সঙ্গে সঙ্গে নিজকে আবেগ-সংসারহীন করে ফেলা ছাড়া সঙ্ঘাত এড়ানোর বিকল্প নাই। বলতে পারেন, খানিকটা মানিয়ে নিলেই হয়, তা হয়, একবার দু বার চার বার দশ বার, কিন্তু তাই বলে পুরোটা বছর? আমি পারমুই না! ~x(

    • megh613@gmail.com'
      মেঘ সেপ্টেম্বর 14, 2011 at 11:56 পূর্বাহ্ন

      বহুদিন পর এসে আপনাদের মন্তব্যগুলো দেখছি। দেরী হয়ে গেছে তবু বলি খুব ভালো লেগেছে আপনাদের পেয়ে।

  9. Khn.Rubell@gmail.com'
    খন্দকার নাহিদ হোসেন জুন 30, 2011 at 2:48 অপরাহ্ন

    আমি নিজেই নতুন মানুষ তাই বলে আপনাকে স্বাগতম জানাতে পারবো না এ কথাতো আর কোথাও লেখা নেই।
    আপনাকে স্বাগতম শৈলীতে।
    আর গল্পটা বেশ লাগলো।

  10. নীল নক্ষত্র জুলাই 29, 2011 at 9:40 পূর্বাহ্ন

    ও দিদি! তুমি আমারে কিছু না কইয়া কেমনে আইলা? আমি তো চতুরের চাতুরীর তেজ সইতে না পাইরা আইয়া পরছিলাম। তা তুমি আইবা যদি কইতা তাইলে আর কিছু না হোক অন্তত একটা ঠ্যালা গাড়ি হইলেও পাঠাইতাম!!!!! যাক আইসাই যখন পরছ মনে যোগ দিয়া লেখালেখি কইরো।
    শুভ কামনা।

You must be logged in to post a comment Login