বিশ্বাস !

Filed under: ছবিশৈলী,ফটোগ্রাফী |

শৈলীতে চোখ রাখা দীর্ঘদিন পরে । কখনো নিয়মিত চোখ রাখতাম , যখন কলমের সাথে সখ্যতা ছিল । পরের সময়টা শুধুই বিচ্ছেদের । বিচ্ছেদ কলমের সাথে, শৈলীর সাথে, আরও কতকিছুর সাথে, কত কারো সাথে । আজ আসা নিছকই কিছু ছবি দেখাবার জন্যে ।

বিনয়ের সাথে জানিয়ে নিচ্ছি, আমি ছবি তুলতে জানি না । আমি গল্প করতে জানি । কিছু গল্প বলতেও জানি । ছবি তার অনুসঙ্গ মাত্র ।

শাঁখারী বাজার । ক্যামেরাকে কাঁধের বোঝা করার পর থেকেই জায়গাটা আমার ভীশন পছন্দের হয়ে উঠেছে । এখানের মানুষের মাঝে আমি ভিন্ন কিছু দেখেছি, যা অন্য কোথাও দেখিনি । গত ২৭ অক্টোবর কালী পূজা ছিল । সে উপলক্ষেই পরীক্ষা শেষ করে সন্ধ্যায় শাঁখারী বাজার । দেখলাম ! দেখলাম কি করে মানুষ আর তার বিশ্বাস মিলে মিশে একাকার হয়ে যায় ।

The Cession

মানুষেরও অধিক যে তার বিশ্বাস, তার সামনেই যে যুগের পর যুগ মানুষ মাথা নত করে আছে, আরও যুগের পর যুগ যে তার সামনেই মানুষ মাথা নত করে থাকবে, তার সাথেই যে একাত্মতা ঘোষনা করবে জন্ম থেকে জন্মান্তরে – তাই দেখলাম সেদিন শাঁখারী বাজারে । দেখলাম, কি করে মানুষ তার বিশ্বাসের বন্দনা করে । কতটা তন্ময় চিত্তে সে বন্দনা আদায় করে নেয় বিশ্বাস । আলোআঁধারি চারধার । তবু বিশ্বাস স্বমহিমায় উজ্জ্বল!

The Devotion

প্রকৃত বিশ্বাসের সামনে দাঁড়িয়েই তো আবিষ্কার করা যায় নিজের ক্ষুদ্রতাকে । কত ক্ষুদ্র এ স্বত্তা ! বাস্তবেই মানুষ তার বিশ্বাসের সামনে হারিয়ে ফেলে নিজেকে । এ স্বত্তা যেন এ ভুবনের নয়; কোনো অন্য ভুবনে এ স্বত্তা । মানুষের বিশ্বাস মুহুর্তেই তাকে যেন নিয়ে যায় অন্য কোনো জগতে । সেখানে ঘৃনা নেই, ক্রোধ নেই, নেই কোনো আঘাত; শুধুই ভালোবাসাময় সে জগত । আপন বিশ্বাসে ভালোবাসা!

Feel The Sprituality

কত আপন করে পেতে চায় মানুষ তার বিশ্বাসকে । বিশ্বাসের একমুহুর্তের বিচ্ছেদের অর্থ যেন মৃত্যু ! বিশ্বাসের পদতলে মানুষ ঠেকায় মাথা । আবার মানুষ তার বিশ্বাসকে বুকের মধ্যিখানে রাখবার মতন করেই গড়ে নেয় যতনে ।

The Miniature of God

মানুষ বেঁচে থাকে বিশ্বাসে । আমৃত্যু বুকে আগলে রাখে মানুষ তার বিশ্বাস । এই বেঁচে থাকা অন্তহীন বেঁচে থাকা । মানুষের দেহ ধুলায় লুটায় ; লুটায় না তার বিশ্বাস কোনোদিন । যুক্তি, অবিশ্বাস আর সন্দেহের বেড়াজালে আবদ্ধ মানুষ হয়ে সেদিন শাঁখারী বাজারে অনুভব করেছি, এই একটুকরো বিশ্বাসই কতটা দামী হতে পারে ।

শৈলী.কম- মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফর্ম এবং ম্যাগাজিন। এখানে ব্লগারদের প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। ধন্যবাদ।

16 Responses to বিশ্বাস !

  1. কত্তোদিন ! পর এলেন মাহির ভাই । চমকে উঠলাম , আর একটা সময় ছিলো যখন আপনার নামটাই শৈলী খুললেই চোখ খুঁজে নিতো … আজ আবার সেই চোখ মুছেই দেখছি সত্যি কী ! মাহির ভাই । খুব খুব ভালো লাগছে ।

    ২নং ছবিটা দেখেছি ফেসবুকে পরশু … বাঁকিগুলোও তেমন একবার দেখলেই মুখস্ত হয় ।
    আর গল্পটাও আপনারই ঢংএ … চিনতে ভুল হলো না , এ আমাদের শৈলার আহমেদ মাহির ।

    imrul.kaes@ovi.com'

    শৈবাল
    অক্টোবর 29, 2011 at 9:46 পূর্বাহ্ন

    • কায়েস ভাই, আপনার মনে পড়ে, কোনোদিন আমি লিখেছিলাম, ”… সময় ফেরে, সময় ফিরে এসে ধরে সময়ের হাত … ” ? সত্যিই সময় ফেরে । হয়ত এরই মাঝে বেশ খানিকটা পথ, গুটিকয়েক বসন্ত, আর কিছু পাতাদের ঝরে যাওয়া ।
      ভাবছি আবারও লিখব । কিছু ভিন্ন ধরনে । জানিনা, এ হৃদয়ের ক্ষনিকের ছলনা কিনা; তবু ভাবতে ভালো লাগে, আবারও লিখব …

      mahirmahir3@gmail.com'

      আহমেদ মাহির
      অক্টোবর 29, 2011 at 9:59 পূর্বাহ্ন

  2. আমার মাহির ভাইয়া ছবি তুলতে জানে না কথাটা মানলাম না । একজন অনুভুতিপ্রবণ মানুষের চোখের আলোয় তোলা ছবি এক একটা । ছবির প্রফেশনাল কারীগরি বা ভুলট্রুটি জানিনা বলে নয় আমার বিশ্বাস তোমার ছবিতে কোন ভুল নাই ।আর বিশ্বাস নিয়ে যা লিখেছ তাই ভাবি কখনো লিখে উঠতে পারিনি ।
    মাহির লিখবে শুনতে ভালো লাগল ।ইদানিং আমিও লিখিনা তবে বোরিং লং জার্নিতে নিজের সাথে একলা হলেই লিখব এটা ভাবতে ভালো লাগে ।

    rabeyarobbani@yahoo.com'

    রাবেয়া রব্বানি
    অক্টোবর 29, 2011 at 10:33 পূর্বাহ্ন

    • রাবেয়া আপার সাথে দেখা বহুদিন বাদে । এককালে বুঝি এই পথেই দেখা হয়েছিল ।

      আপা, ছবি তোলাটা সত্যিই এতদিনেও শিখে উঠতে পারিনি । এই কলায় নানা নিয়ম । আমি নিয়মের জালে বিশেষ বন্দী হয়ে থাকতে পারি না । ছন্নছাড়া কিনা!

      দীর্ঘ পথযাত্রা যখন যখন দীর্ঘরূপে অনুভব করা যায়, তখন সে মন্দ কি? আর সে যাত্রায় কলম সঙ্গী হলে ক্ষতিই বা কি? আপনার হাতে কলমটা মানায়ও বেশ । আশা করি বিচ্ছেদ দীর্ঘ হবে না । দীর্ঘ বিচ্ছেদে হারাবার ভয় থাকে বৈকি !

      mahirmahir3@gmail.com'

      আহমেদ মাহির
      অক্টোবর 29, 2011 at 8:39 অপরাহ্ন

  3. বিশ্বাসের প্রান্তধারেই হয়ত জীবনের আলোকবর্তিতা কিংবা আনন্দলোকের সম্ভবনাময় সীমানা। বিশ্বসের দৃড়তাই হয়ত আজো মানুষের দাঁড়িয়ে থাকে এক টুকরো স্বপ্ন নিয়ে।বিশ্বাস নিয়ে আপনার লেখা বেশ ভালো লাগল। :rose:

  4. দেখলাম পড়লাম , এর বাইরে আজ কিছু বলব না :rose:

    touhidullah82@gmail.com'

    তৌহিদ উল্লাহ শাকিল
    অক্টোবর 29, 2011 at 1:17 অপরাহ্ন

  5. চমৎকার সব ছবি

    nely_paul@yahoo.com'

    নেলী পাল
    অক্টোবর 30, 2011 at 12:05 পূর্বাহ্ন

  6. Mahir Vaike Dekhe Sottei Valo Laglo Amaro.
    Aponar Babui Pakhir Moto Ki Jotne Gorha Kabbo-Nirh Dekhe Tulparh Korto Hridoy. Ekhono Miss Kori Aponar Podocharona.
    Fire Asun Mahir Vai, Ei Shilpo-Dheu a, Hridoy Ningrhano Dhon Niye, Fire Asun Shoilyte Abar…

    রাজন্য রুহানি
    অক্টোবর 30, 2011 at 9:22 পূর্বাহ্ন

    • রূহানী ভাই, কেমন আছেন ?
      ভাই, কাব্য-কালি-কলম আমায় ছেড়ে গিয়েছে । কিংবা আমিই ওদের ছেড়েছি । যাকগে, ফলাফল তো একই । আর চাইলেই কি ফিরে আসা যায় ? …
      ভালোবাসা রইল শৈলীর প্রতি । প্রতিটি শৈলারের প্রতি ।

      mahirmahir3@gmail.com'

      আহমেদ মাহির
      অক্টোবর 31, 2011 at 2:23 অপরাহ্ন

  7. ছবিগুলি ভালো লাগলো।

    riton1975@gmail.com'

    জাহিদুল কবির রিটন
    অক্টোবর 30, 2011 at 11:11 পূর্বাহ্ন

মন্তব্য করুন