অক্টোবরের লেখা

Filed under: আলোচনা |

১.

গেলো সপ্তায় “BIOGRAPHILE” তাদের “This Week in History” পরিচ্ছেদে প্রকাশ করলো বিখ্যাত দুজন কবি; দুই জন ভিন্ন শতকের কবির তুলনামূলক আলোচনা । নামদুটো যখনি একসাথে চোখে এসে পড়লো খানিটা ধাঁধায় জড়াচ্ছিলো তাৎক্ষণিক ! ঠিক কী কারণ হতে পারে এমন দুজনের আলোচনা একসাথে করার ? নিউজ লেটারটিও বলছে এমন ভাবে “Keats was famed for sensual imagery and his worship of beauty, be it real or only in his imagination. Plath, of course, is most well known for her tortured battle with depression which fed her unbelievably piercing observations” এটা আপনিও জানেন দুজনের মধ্যে অমিল খুঁজার মতো মিল কমই
আছে তবে কেন এই পারস্পরিক তুলনা । ধাঁধার উত্তরটি হলো দুই ভিন্ন শতকে জন্ম হলেও তাঁদের জন্ম মাসটি অক্টোবর । এইবার নিশ্চয় ধাঁধাটি থাকছে না কেন এই আলোচনা; কারণ জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাতেই “BIOGRAPHILE” নিউজ লেটারের
এই আয়োজন । আলোচনায় দুজন কবির কতগুলো কমনফ্যাক্টের নিয়ে কী ধ্যান তারই ধারনা দিতে চেয়েছেন ।
Untitled

s. plath

বিষয়গুলো হলো : ১. মহিমা
২. কল্পনা
৩. আত্ম-প্রতিফলন
৪. অভিজ্ঞতা
৫. লেখনি
৬. মানুষ
৭.বেদনা
এই বহুল ভাবিত, চর্চিত এবং আলোচিত সাতটি প্রশ্নের উত্তর চাওয়া হলো দুজনের কাছেই একসাথে, মিথ্যে কথা ! তাঁদের আত্মাকে প্লানচিট্ করে আনা হয়নি তবে উত্তরগুলো তাঁদের আত্মায় দিয়েছে সন্দেহ নেই । উত্তরগুলো লেখা , কবিতা , ডাইরি বা পুরনো সাক্ষাৎকার ঘেঁটে আনা হয়ছে । প্রথমে ভাবি অনুবাদ করি , কিন্তু নিজের অপারগতা স্বীকার করছি যখনি বাংলা করতে যাচ্ছি দেখছি কথাগুলোর আবেগ হারাচ্ছে , মনে হয়নি তাঁরা ঠিক যে ভাবে বলেছেন তার চেয়ে ভালো আর কেও বলতে পারবেন তাই … সেই অন্যায় ইচ্ছে থেকে নিজেকে ফিরেয়ে আনছি । …
1 .On Greatness:
Keats: “I would sooner fail than not be among the greatest.”
Plath: “I too want to be important. By being different. And these girls are all the same.”

2. On Imagination:
Plath: “Imagination is more important than knowledge.”
Keats: “What the imagination seizes as beauty must be truth

3. On Personal Reflection:
Keats: “My imagination is a monastery and I am its monk.”
Plath: “I never feel so much myself as when I’m in a hot bath.
4. On Experience:
Plath: “Why can’t I try on different lives, like dresses, to see which one fits me and is most becoming?”
Keats: “Nothing ever becomes real till it is experienced.”

5. On Writing:
Keats: “It is easier to think what Poetry should be than to write it.”
Plath: “Let me live, love and say it well in good sentences.”

6.On People:
Plath:“I love people. Everybody. I love them, I think, as a stamp collector loves his collection. Every story, every incident, every bit of conversation is raw material for me.”
Keats: “Scenery is fine – but human nature is finer.

7. On Hardship:
Keats: “Do you not see how necessary a world of pains and troubles is to school an intelligence and make it a soul?”
Plath: “The hardest thing is to live richly in the present without letting it be tainted out of fear for the future or regret for the past

শেষ সাতটি প্রশ্ন শেষ । তুলনা নিয়ে আমি আর একটা কথাও বলবো না

২. এই তো গেলো BIOGRAPHILE ‘ র ধাঁধা, এইবার একটি গোলোক আঁকতে চাচ্ছি; গোলকধাঁধার গোলকটি । জন্মের দিয়ে শুরু গোলকটি কী দিয়ে সম্পূর্ণ হবে তা নিশ্চই আন্দাজ করা যায় । সেই বিষয়ে কিছু; কথা দিচ্ছি একবারেই ছোট্ট করে । দুটো সমাধি-পাথরের ছবি দিচ্ছি
John_Keats_Tombstone_in_Rome_01

ফেব্রুয়ারির ২য় সপ্তাহে যক্ষ্মায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুশয্যায় কবি কিটস, চিঠি এলো ফ্যনী ব্রউনের চিঠিটি খুললে না তিনি,রোগশয্যার পাশের একমাত্র সঙ্গী সের্ভন কে ডেকে করলেন দুটো অনুরোধ এই চিঠিটি আমার কবরে দিও , আর আমার কবরে যেন শুধু লেখা থাকে
‘Here lies One / Whose Name was writ in Water’

সেটিই লেখা হয়েছিলো , খেয়াল করে দেখুন এখনো তাই আছে ।

Grave_of_Sylvia_Plath_-_geograph.org.uk_-_412470

এইযে এই গ্রেভস্টোনটি এটিতে লিখা আছে
“ “Even amidst fierce flames the golden lotus can be planted”
হিংস্র আগুনের অন্তরে সোনার পদ্ম ফলানোর কথা বলা হচ্ছে !ধারণা করা হয় এটি ভগবত গীতা কোন শ্লোক । কোন আগুনের কথা বলা হয়েছে কষ্টের আগুন, হিংসার আগুন নাকি গ্যাস সিলিন্ডারের আগুন …
আচ্ছা সিলভিয়া প্লাথ তো গ্যাস সিলিন্ডারে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যা করেছিলেন …

শৈলী.কম- মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফর্ম এবং ম্যাগাজিন। এখানে ব্লগারদের প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। ধন্যবাদ।

4 Responses to অক্টোবরের লেখা

  1. খুব ভালো লাগল লেখাটি । শুভ কামনা।

    rabeyarobbani@yahoo.com'

    রাবেয়া রব্বানি
    নভেম্বর 6, 2014 at 6:45 অপরাহ্ন

    • কৃতজ্ঞতা জানবেন । তাৎক্ষণিক লেখা, নিজের কাছেই খুব বেশি ভালো লাগেনি, তবে ভালো লাগছে আবার শুরু করতে পেরেছি হয়তো; সেই ভেবে । আপনার জন্যেও অনেক শুভ কামনা ।

      imrul.kaes@ovi.com'

      শৈবাল
      নভেম্বর 6, 2014 at 7:05 অপরাহ্ন

  2. ঘটনা, পরিবেশ ও আবহের ভিতরে মনোগত আবেগ-চিন্তার সাথে সময়ের বৃত্তায়নে প্রকৃতির এই নিগূঢ়-রহস্যের খেলা ভাবিতই করে না কেবল, প্রকারান্তে মহাকাল-নদীর এপাড় আর ওপাড়ের মধ্যে তৈরি করে এক সেতু, মানসচক্ষেই দেখা যায় অনুভবের উদ্যমতার সেই চালিকাটি, সব ছাপিয়ে কালোত্তীর্ণ দুই ভিন্ন সত্তার ব্যথাতুরা স্মৃতিময় যাপিত জীবনের দৃশ্য।
    ………
    লেখাটি মুচড়ে দিল, কবি। তবু ভালো লাগছে, আপনার দেখা পেয়ে। দীর্ঘক্লান্তির শেষে চোখ তুলে মুখপানে চাইবার লজ্জায় আড়ষ্ট হচ্ছি বারবার, প্রতিকূলের দেয়ালঘেরা কোনো বন্দিশিবিরের আমি। হাতের কাছেই সেলফোন, অথচ মাথা ফেলে দিব্যি হাঁটছি দিনের পর দিন কী এক ঘানি নিয়ে কুলুর বলদের মতো।
    ……..
    মঙ্গল কামনা।

    রাজন্য রুহানি
    নভেম্বর 6, 2014 at 9:14 অপরাহ্ন

  3. অনেক সময় নিয়ে লেখাটি পড়ে শেষ করলাম।
    ভালো লাগলো।
    শুভ কামনা

    sokal.roy@gmail.com'

    সকাল রয়
    নভেম্বর 15, 2014 at 5:56 পূর্বাহ্ন

You must be logged in to post a comment Login