যাপনের জীবিত যাতনা

Filed under: ‌কবিতা |

এপাড়ে বাসনাদের বাস
শোষিত স্বরলিপি— অনাগত বিড়িপোড়া দিন
তাঁতানো বালির বাড়ি—
লেজ গুটানো দৌড় পালাই পালাই

ওপাড়ে সোনাবন্দের সোনামাখা ত্বকে সোনালি ঝিলিক
অধরকান্ত ভোর;
ছিপজাল মনে মন্ত্র দিয়া জলসখ্যের সাধ
চোখনদীর নাব্যপাড়ে
গাছপাপড়ির উথালি বিথালি মনোহরণ ডাক
প্রাণপুষ্টি দ্যোতনায়

আমি যে সাঁতার জানি নে
ও জাওলা… ও হারান মাঝি…
ওপাড়ের পরশ পাথরিত রং যখন মুমূর্ষু মনের দাওয়াই;
উত্তর সিঁথান ঝেড়ে ফেলা— আদিকালের সংস্কার

আহা, মাতৃগর্ভেই আমি সাবলীল সাঁতারু ছিলাম

শৈলী.কম- মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফর্ম এবং ম্যাগাজিন। এখানে ব্লগারদের প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। ধন্যবাদ।

50 Responses to যাপনের জীবিত যাতনা

  1. ‘যাপনের জীবিত যাতনা’ না কি জীবিতের যাপন যাতনা?

    • যাপনকালে যে যাতনার জন্ম, সে জীবিতই আছে। যেমন চাঁদ বারোমাসে ঘুরেফিরে আসে; মানসচক্ষে দেখি তার লয় আছে ক্ষয় আছে, নিরুদ্দেশের খেলাও আছে, তবু সে ঠিক তেমনই আছে, যাপনের জীবিত যাতনার মতো দিনগুলির কাছে।

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 22, 2011 at 4:22 অপরাহ্ন

  2. বৈচিত্রের স্বাদ বেশ ভালোই পেলাম।কবিতাটি খুবি মনে ধরেছে কবি।কবিতাটি বার বার পড়ে যাচ্ছি।শব্দেগুলো রংধনুর মতই সাতরঙ্গের লাগছে।

    বিড়িপোড়া দিন

    :-bd

    আমি যে সাঁতার জানি নে
    ও জাওলা… ও হারান মাঝি…

    :-bd

    আহা, মাতৃগর্ভেই আমি সাবলীল সাঁতারু ছিলাম

    এই লাইনগুলোতে ডুবে গেলাম গো। 8->
    তবে বিষন্ন কবির গলায় অন্য সুর শোনা যাচ্ছে। :-?

    rabeyarobbani@yahoo.com'

    রাবেয়া রব্বানি
    মার্চ 22, 2011 at 2:38 অপরাহ্ন

    • পড়তে পড়তে যে মুখস্থ হয়ে যাবে!
      জানেন তো, মুখস্থ করা আর নকল করা সমান অপরাধ? :D
      …………..
      ~O)

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 22, 2011 at 4:31 অপরাহ্ন

      • :-SS এখন কি করি?মুখস্থ হয়ে গেছে যে।

        rabeyarobbani@yahoo.com'

        রাবেয়া রব্বানি
        মার্চ 23, 2011 at 2:29 পূর্বাহ্ন

        • মাফ নাই, দন্ড হইতে পারে
          শুদ্ধ অপরাধের তরে। :D
          ………
          দন্ডিতের এমন ব্যবহারে
          কী দন্ড দেয়া যায়, ভাবি বসে আহা রে!
          ………
          সব সময় ভালো থাকবেন, ভালো লিখবেন, নিয়মিত পোস্টাইবেন, আলসেমি ছেড়ে নিজের লেখাগুলো নাড়াচাড়া করে শোধরাইবেন আর বিখ্যাত লেখকদের লেখা বেশি বেশি পড়বেন ঘর-সংসার ঠিক মতন কইরা, এই হইল দন্ড। :-w

          রাজন্য রুহানি
          মার্চ 23, 2011 at 5:26 পূর্বাহ্ন

  3. সুন্দর, খুব সুন্দর!

    রিপন কুমার দে
    মার্চ 22, 2011 at 7:34 অপরাহ্ন

    • সাত-সমুদ্দুর তেরো নদীর ওপার থেকে
      পাঠালো যে সুন্দরের ধ্বনি;
      আঁকুপাকু মনে শুদ্ধছবি এঁকে
      মাথায় তুলে নিলাম ভালোলাগাখানি….
      >:D<

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 23, 2011 at 5:35 পূর্বাহ্ন

  4. ইহা একখানা চমৎকার কবিতা।
    শব্দ টানে, শব্দ মাঝে সাঁতার কাটা যায়।

    • আপনার মন্তব্যে হৃদয়মন্দিরে যেইরকম করিয়া ঘন্টা বাজিল, তাহাই জানাইলাম। এই কথাও ভুলিলাম না, শব্দের সাগর নাকি নদীর পানিতে সাঁতরাইয়া মজা পাইয়াছেন। সেইজন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ছাড়া আর কোনো গত্যন্তর নাই। ভালো থাকিবেন।

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 24, 2011 at 10:32 পূর্বাহ্ন

  5. কবিতার যতোগুলো গুণ থাকা প্রয়োজন সবগুলো এসে উপস্থিত হয়েছে
    জীবন বিভাজনের তিনটি স্তরের দুটি স্তর খুবই সুন্দরভাবে উপস্থাপিত হয়েছে

    ধন্যবাদ কবি

    • কী করিয়া বুঝিলেন, কবিতার যতগুলি গুণ থাকিবার প্রয়োজন সবগুলি উপস্থাপিত হইয়াছে? জীবন বিভাজনের দুইখান স্তর ফুটিয়াছে, উহা কী কী, যদি বুঝাইয়া বলিতেন তাহা হইলে এই অধম অশেষ উপকৃত হইত। তাহার কারণ বোধহয় এই, লিখি আর পড়ি; তাহার পর বুঝিবার আর কোনো অবকাশ নাই। মাথায় ব্যাপক গন্ডগোল, না হইলে কাব্যরচনা করিতাম না; সোনার হরিণের পিছনে ছুটিয়া বেড়াইতাম। :D
      পরিশেষে ধন্যবাদ জানিবেন।

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 24, 2011 at 10:48 পূর্বাহ্ন

  6. আহা, মাতৃগর্ভেই আমি সাবলীল সাঁতারু ছিলাম :-bd বাহ দারুন!!!

    mannan200125@hotmail.com'

    চারুমান্নান
    মার্চ 23, 2011 at 8:04 পূর্বাহ্ন

    • হুঁম, তখন কোনোই চিন্তা-ভাবনা কিংবা জীবন-যাতনা ছিল না গো। শুধু ডিএনএর ব্লু প্রিন্টে একটা মানব ভ্রূণ বিকশিত হইবার মন্ত্রণা ছিল। মাতৃগর্ভের আয়ু শেষ হইলে জগতে আসিয়া সেই আয়ু পারিপার্শ্বিক প্রভাবে দিগ্বিদিক ছুটিয়া বেড়াইল। কত যে উষ্ঠা খাইল, নাকানি-চুবানিও খাইল ঢের, কত যে শিখিল ঠেকিয়া-দেখিয়া, কত কিছু আসিয়া জুটিল মহামনের ভিতর; একটাই নৌকা, মাঝি জুটিল অসংখ্য— তাহাদের মত ও পথের লক্ষ্যও ভিন্ন। মাঝিদের এইরূপ আপাত বিরোধী ক্রিয়াকলাপে নৌকাটার কী গতি বা লক্ষ্য হইবে তাহা যেমন বুঝা দুষ্কর তেমনই মাঝিদের সরাইয়া এক নৌকা, এক মাঝি’রাখিবার চেষ্টাও হিতে বিপরীত হইতে পারে ভাবিয়া বড়ই কষ্টের ভিতর রহিয়াছি।
      যখন শোনা যাবে এক মাঝির সুর,
      তখনই নৌকাটি
      হয়ে পরিপাটি
      লক্ষ্যে যাবে, যাতনা হবে দূর।

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 24, 2011 at 11:20 পূর্বাহ্ন

  7. আমি যে সাঁতার জানি নে
    ও জাওলা… ও হারান মাঝি…
    ওপাড়ের পরশ পাথরিত রং যখন মুমূর্ষু মনের দাওয়াই;

    8-}
    দাওয়াই না পেলে যে অসুখ সারবে না, তবে উপায়? :D
    বিড়িপোড়া দিন, অধরকান্ত ভোর, ছিপজাল মন, চোখনদীর নাব্যপাড়, গাছপাপড়ি শব্দগুলো নতুনত্বের দাবিদার। চমৎকার লাগল।

    আহা, মাতৃগর্ভেই আমি সাবলীল সাঁতারু ছিলাম

    সমস্তকিছুর অবিচল ধারায় জীবনের যাতনা, হতাশা, নৈরাশ্যসহ জীবনবোধের তলানিতে যে রং কষ্টনীল বর্ণে উদ্ভাস, তার সফল-সুন্দর অথচ পাপতাপহীন আরেকটি প্রবাহে চলে যাই, খেদহীন তবু খেদের সুরেই কলুষমুক্ত এই শেষ পঙতিতে।
    =D>

    bonhishikha2r@yahoo.com'

    বহ্নিশিখা
    মার্চ 24, 2011 at 7:08 পূর্বাহ্ন

  8. অফুরন্ত ভাললগায় মনটা ভরে গেল। চুম্বক যেমন লোহাকে টানে ঠিক সেভাবেই কবিতার শব্দগুলি টেনেছে।
    :-t

    sumhani@gmail.com'

    সুমাইয়া হানি
    মার্চ 25, 2011 at 3:18 পূর্বাহ্ন

  9. আহ, শব্দের মায়াজাল গড়েছেন। বারবার পড়তে ইচ্ছে করে। এমনিতে প্রায় সবগুলি লিখা পড়ি কিন্তু মন্তব্য করা হয়না। এখানের কারও কারও লেখা পড়ে মন্তব্য না করলে যেন উসখুস করে। তাই মাঝে মাঝে ঢু মারি। জুলিয়ান, শৈবাল, নীল নক্ষত্র, রাবেয়া রব্বানির লেকাও খুব ভালো লাগে। সকলকেই প্রীতি।

    বৈশাখী
    মার্চ 25, 2011 at 3:46 পূর্বাহ্ন

    • প্রীতি নিলাম যথারীতি
      দিলাম না শুধু
      অনিয়মিতের অনুমতি। :D

      rabeyarobbani@yahoo.com'

      রাবেয়া রব্বানি
      মার্চ 25, 2011 at 4:35 অপরাহ্ন

    • ৥বৈশাখী, আপনিও প্রীতি জানবেন। রাবেয়া রব্বানি কিন্তু নিয়মিত হতে বলছেন, অনিয়মিত হলেই অনুমতি লাগবে। :D

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 25, 2011 at 5:03 অপরাহ্ন

      • পড়াটা আমার ভয়ঙ্কর নেশা। তাই পড়ি। কল্পনায় ভাসি। মজা পাই। নিজেকে হারাই। কথা দিচ্ছি, পড়ে যাবো নিয়মিত। কারণ- এটিই যে আমি করি। :D

        বৈশাখী
        মার্চ 27, 2011 at 5:40 পূর্বাহ্ন

  10. ও জাওলা… ও হারান মাঝি…
    ঘনঘোর অন্ধকার…চারি দিকে ঝিঝি পোকা ও থোপথোপ জলের উপর ব্যাঙ-এর ডাক……
    অধরকান্ত ভোর

    আমি যে সাঁতার জানি নে
    এপারের ঘন আধার আরো ঘনিয়ে আসছে….
    ওপাড়ে সোনাবন্দের সোনামাখা ত্বকে সোনালি ঝিলিক
    তার ছোয়া পাবো কি কখনও……

    • কী জানি! উত্তর সিঁথান, আদিকালের সংস্কার ঝেড়ে ফেলে তো এসেছি; ওপারের পরশ পাথরিত রং পেতে নদী পেরুবো কেমনে, সেটিই ভাবছি। :-w

      রাজন্য রুহানি
      মার্চ 28, 2011 at 6:26 পূর্বাহ্ন

  11. আপনার এ কবিতায় দুটি বিষয় প্রত্যক্ষ করলাম। প্রথমত এতগুলো (আমার জানা মতে শৈলীর সর্বোচ্চ) লাইকের পরও লেখাটি এক্সক্লুসিভ হলো না, দ্বিতীয়ত দায়িত্ববান এবং রুচিশীল দু লেখক জুলিয়ান সিদ্দিকী ও শৈবাল সম্ভবত আপনার এ লেখাতেই কোনো মন্তব্য করেননি; যদিও লেখাটি তাদের গোচরীভূত হয়েছে বলে আমার বিশ্বাস। লেখার মান-এ কমতি নেই, তবু কী কারণে তাদের এ আচরণ, বুঝতে পারলাম না। 8->

    দিনে দিনে সফলতার রোদ ছড়াক আপনার বিতৃষ্ণাবলয়ে, এই কামনা করছি। ভালো থাকুন কবি।
    :rose: %%- :rose:

    bonhishikha2r@yahoo.com'

    বহ্নিশিখা
    এপ্রিল 3, 2011 at 6:03 পূর্বাহ্ন

    • বহ্নি ,
      শৈলীতে নিয়মিত থেকে যা লক্ষ্য করেছি তা হলো এক্সক্লুসিভ হওয়ার মত লেখা অবশ্যই হয় । এটাও হবে আশা করি । তবে আপনি কিছু কম আসেন বলে হয়ত খেয়াল করেন নি , রিপন কুমার দের দুটো পোষ্ট 55 এর কাছাকাছি লাইক পেয়েছে ইতিমধ্যে কিন্তু এক্সক্লুসিভ করা হয়নি ।হয়ত শৈলী এক্সক্লুসিভের ধারা বদলিয়েছে । আর সন্চালক নির্বাচিত ব্যাপারটাও এখন শৈলী তত্‍ক্ষনাত্‍ করে না একটু সময় নেয় । রাজন্য ভাইয়ের এই কবিতা যোগ্য সম্মান পাবে আপনি নিশ্চিত থাকুন । শৈলীর উপর আমার আস্থা তাই বলে । ভালো থাকুন

      rabeyarobbani@yahoo.com'

      রাবেয়া রব্বানি
      এপ্রিল 3, 2011 at 8:14 পূর্বাহ্ন

      • প্রিয় বহ্নি ও রাবেয়া, আমি খুব নিভৃতচারী মানুষ, আপন মনেই বুঁদ হয়ে থাকি বেশিরভাগ সময়। কোলাহল-চেঁচামেচি আর নাগরিক যাতনা থেকে দূরেই থাকতে চাই বরাবর। বিদ্বেষ নয়, চাই শান্তি। অমঙ্গল নয়, চাই সবার কল্যাণ। মণিহার প্রাপ্তির আশা কিংবা মুকুট পরে সিংহাসনে বসার লোভ নেই, বামুনের মতো চাঁদ ধরবার সাধ হয় নি কস্মিনকালেও, প্রকৃতির নিবিড় সান্নিধ্যের মধ্য দিয়ে শুধু বাঁচতে চেয়েছি ভালোবাসা-স্নেহ-প্রেম নিয়ে পারস্পরিক সহমর্মিতায়। দুর্বোধ্য জীবনলিপির পাঠোদ্ধার করতে পথে পথে ঘুরে ঘুরে নানা রংয়ের নানা মানুষ ভজে ভজে এখন আমি আপনারেই চিনতে ত্রস্তব্যস্ত। জানি, মানসিক এই শান্তিময় মনোজগতে ঈর্ষা নেই, ক্ষোভ নেই, অপ্রাপ্তির যাতনা নেই, বঞ্চনার বেদনা নেই; ছয় চোরের ঘরে বন্দী প্রাণপাখিটির চোখেই প্রশান্তির আকাশ দেখা যায়, আমার লেখক-কথনের মতো।

        লেখা ভালোলাগা, সঞ্চালক নির্বাচিত হওয়া, এক্সক্লুসিভ হওয়া সবই সুপ্রিয় শৈলারদের ভালোবাসা আর বাধ্যমান্য কর্তৃপক্ষের এখতিয়ারে থাকারই কথা। এ নিয়ে অনুযোগ বা রাগ নেই আমার। কারণ— আমি জানি, মানুষ যা পায় আর যা হারায় তার কৃতিত্ব ও দায়ভার একান্ত তারই।

        আপনাদের দু জনের উদ্দেশ্যে নিবেদিত করলাম আমার এই কবিতাটি—

        কোথায় আমি যাই গো এখন
        কারে বা জানাই,
        পিছন ফিরে চেয়ে দেখি
        আমার আমি নাই।

        বলতে গিয়ে নিজের কথা
        নিজেই হারাইছি,
        তুলতে গিয়ে প্রেমরই ফুল
        কী যে তুলেছি!

        চলতে গিয়ে নিজের দু পা
        যা-ই খুঁজেছে,
        ঘুরেফিরে পায়ের ব্যথা
        পা-ই সয়েছে।

        হাত ইশারায় ডেকেছি যা
        মত্ত কামনায়,
        জৈব-মোহে নিজেরই ধন
        নিজের কল্পনায়।

        ভাবছি যাকে গভীর আপন
        জীবনের বোধে,
        রাগ-বিরাগে সেই আমি
        নিজের প্রবোধে।

        দু চোখ মেলে যেদিকে চাই
        প্রীত চাহনি,
        মনের ভিতর মনেরই ঘোর
        অলীক রশনি।

        সত্য মায়ায় মিথ্যে যেটুক
        এ ধরাজ্ঞানে,
        চেয়ে দেখি ডুবে গেছি
        নিজেরই দানে।
        ………………………………………….
        ভালো থাকবেন নিরন্তর,
        লিখবেন যা তা যেন হয় দিলখোলা প্রান্তর।
        %%- :rose: %%-
        ………………………………………….

        রাজন্য রুহানি
        এপ্রিল 3, 2011 at 10:32 পূর্বাহ্ন

        • কবির এই নিভৃতচারন স্বভাব কিছুটা হলেও আঁচ পাই । কথাগুলো বহ্নিকে বলা ।উনি কবির কবিতার একনিষ্ট পাঠক । তার সংশয় আর ধারনায় কিছু বন্ধুত্বের পরশ ছোয়ালাম ।
          কারন তার মত আমিও এই কবিতাটাকে মুখস্থ মর্যাদায় রেখেছি ।
          কবির প্রতি সম্মান ।

          rabeyarobbani@yahoo.com'

          রাবেয়া রব্বানি
          এপ্রিল 3, 2011 at 11:06 পূর্বাহ্ন

          • এই সম্মান আমায় নাহি সাজে, :D
            তাই ভালোবাসায়
            শুধু বাঁচতে চাই
            মানুষ আর মানবতার মাঝে। 8-}

            রাজন্য রুহানি
            এপ্রিল 3, 2011 at 11:28 পূর্বাহ্ন

    • কবিতাটা পড়া হয়নি বা চোখেই পড়েনি এমনটা কিন্তু না । পড়েছি এবং আরেকটু সাহস করে যদি বলি আমার প্রিয় একটি কবিতা রাজন্য ভাইয়ের লেখা “যাপনের জীবিত যাতনা ” এই সত্যটুকু বলার মতো সাহস আমার আছে আগেও ছিলো । ভালো লাগা পাঠকের নিজের , ভালো লাগাতেই হবে এমন পাঠে আমি আনন্দ পাই না ,সেখানেই পরীক্ষা পরীক্ষা গন্ধ পাই । রাজন্য ভাইয়েই কবিতা আমি আনন্দেই পড়ি আর মাজার কথা এই যে পড়ার পর কখনো সেই আনন্দ খাটো হয়ে যায় নি । যখন এই কবিতাটা শৈলীতে আসে তখন আমি লগ ইন হতেই পারছিলাম না তাই মনের কথাটুকু প্রকাশ করা হয়নি প্রিয় কবির কাছে । এরপর কিছুদিন ছিল আমার শব্দশূন্য দিন যখন আমি খুব একলা থাকতে চাই দুএকজন মনের মানুষের কাছে ছাড়া অন্যকোথাও প্রকাশ হতে ইচ্ছে হয় না ।এই করে আর মন্তব্য করা হলো না এই কবিতায় , না করলেই বা কি ছিলো ! কিন্তু আজ বহ্নিশিখার প্রশ্নে কী একটু হেলে গেলাম বরং প্রকাশ না করা আনন্দটুকো প্রকাশের সুযোগ পেলাম ।

      আমিও এই কবিতাটি এক্সক্লুসিভ হওয়ার জন্য শৈলীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি ।
      আর কবির জন্য শুভকামনা আর শান্তি !

      imrul.kaes@ovi.com'

      শৈবাল
      এপ্রিল 3, 2011 at 2:39 অপরাহ্ন

      • কবি ভাই, আমার কোনো দোষ নাই। সব বহ্নির মনের খেয়াল, নিজে গেয়ে গান নিজেই দিয়েছে তাল। তারে দোষ দিই নেই এমন কোনো মওকা, কেননা সে আমার একনিষ্ঠ পাঠিকা। যা বলেছে সে আমারই তরে, কৃতজ্ঞতা ভরে নিয়েছি মাথায় তুলে সলজ্জ ভূমিকায়; পাঠকের আশা, প্রকাশিত ভাষা রুধিতে পারে কে কোন কঠোরতায়।

        =>> আমি জানি এবং মানি শৈলীর লক্ষ্য; সঠিক যা, করেন তা মাননীয় কর্তৃপক্ষ।

        (কৃতজ্ঞতা, অবশেষে আসার জন্য। কেননা- কিছু মানুষ আছে যাদের সামান্য কথা, সাহচর্য মনকে করে ধন্য, জীবনকে করে অনন্য।)

        রাজন্য রুহানি
        এপ্রিল 4, 2011 at 6:22 পূর্বাহ্ন

  12. আমার মেধা যতটুকু তাতেই নির্ভর করে প্রিয় রাজন্যর লেখায় মন্তব্যে আবেগের তরলতা হয়তো বেশিই হয়েছিল, সেজন্য রাবেয়াপু, কবি শৈবাল ও জুলিয়ান সিদ্দিকী ভাইয়ের কাছে ক্ষমা চাই। আর এতে যে কবি রাজন্যও বিব্রত বোধ করবেন, জানতাম না। তার কাছেও ক্ষমাপ্রার্থী। নইলে রাজন্য বলতে পারতেন না—সব বহ্নির মনের খেয়াল, নিজে গেয়ে গান নিজেই দিয়েছে তাল।
    আমার যা মনে আসে তা অকপটে বলতে দ্বিধা করি না। আমার মনে ধরল বলেই মন্তব্যে কথাগুলো বলেছিলাম। আপনাদের অসুবিধা ও মনক্ষুণ্নের কারণ হয়ে থাকলে দুঃখিত। কথা দিচ্ছি, কারো লেখায় আর মন্তব্য করবো না। তবে পড়বো, এটা নিশ্চিত থাকবেন সবাই।

    bonhishikha2r@yahoo.com'

    বহ্নিশিখা
    এপ্রিল 4, 2011 at 8:31 পূর্বাহ্ন

    • আমি কী বলি এখন!
      যখন
      মস্করা মেখে নিয়ে চলে যায় রোদ,
      তারে কী করে দিই প্রবোধ। [-O<

      যত রাগ যত ক্ষোভ আছে
      পাঠিয়ে দেবেন আমার কাছে,
      ক্ষমার চোখে নয়তো
      দেখবেন এসব, হয়তো
      অজান্তে দুঃখ দিয়েছি মনে
      এই ক্ষণে
      তার দায়মুক্তি চাই;
      দোহাই বোন, চলে যাবেন না হায়… ^:)^

      রাজন্য রুহানি
      এপ্রিল 5, 2011 at 9:10 পূর্বাহ্ন

    • প্রিয় বহ্নিশিখা , শুনতে পাচ্ছেন কিনা জানি না ! খানিকটা বিরক্ত করছি , আপনি ফিরে আসবেন কী আসবেন না এটা আপনার ইচ্ছে কিন্তু কাল থেকে বারবার মনে হচ্ছিল আপনার চলে যাওয়া পিছনে প্রথম কারণ হচ্ছি আমি । একটা আপরাধ বোধ কাজ করছে ভীষণ , তাই উপযাচক হয়ে এখানে আসা । আমার মন্তব্যের জবাব দিতে গিয়েই রাজন্য ভাই যা বলেছেন তাতেই আপনার মান হয়েছে , দেখুন রাজন্য যতটুকো বলছেন ততটুকো শুধু একজন কাছের মানুষকেই বলা যায় আর তিনি আমাদের কাছের মানুষ ভেবেই নিয়েছেন ।আপনি তার একটি কথায় এতো রাগ হলেন কিন্তু একটু হিসেব করে দেখুন এই একটি কথা ছাড়া রাজন্য ভাইয়ের যত কথা আছে আপনার সাথে সেগুলো একবার ভেবে দেখুন আমার মনে হয় শৈলীতে আপনার সাথে রাজন্য ভাইয়েই সবচেয়ে বেশি কথা হয়েছে ।
      একটি তুচ্ছ কথায় কথার কথায় এতো ভালো সম্পর্ক সুন্দর একটা বন্ধুত্ব ভেঙে যাওয়া যে কতোখানি কষ্টের আমি নিজে তা বুঝি ! কখনো হয়তো এমন কিছু বলা হয়ে যায় , যার অর্থটুকো অন্য অর্থ থাকে যাতে প্রিয় মানুষরা কষ্ট পেতেই পারে কিন্তু সংশোধনের সুযোগ না দিয়ে বিদায় বলা , খুব বাজে একটা বিষয় আমি নিজে এমনটা ২য় বার সহ্য করে চাই না । তাই একটা অনুরোধ করবো যে কথাটি সবচেয়ে বেশি কষ্ট দেয় সেই কথাটি সে কথাগুলো এতোদিন আনন্দ দিয়ে রাখতো তা এক সাথে মিলিয়ে দেখুন না একবার , বন্ধুত্ব না একাকীত্ব কোন সত্তাটা বেশি অনুভব করছেন !

      আমার যদি কোন ভুল থাকে তবে ক্ষমা করবেন ।

      imrul.kaes@ovi.com'

      শৈবাল
      এপ্রিল 6, 2011 at 8:32 পূর্বাহ্ন

      • কখনো হয়তো এমন কিছু বলা হয়ে যায়, যার অর্থটুকু অন্য অর্থ থাকে যাতে প্রিয় মানুষরা কষ্ট পেতেই পারে কিন্তু সংশোধনের সুযোগ না দিয়ে বিদায় বলা, খুব বাজে একটা বিষয়।

        :-bd
        আমার মতও তাই।

        রাজন্য রুহানি
        এপ্রিল 11, 2011 at 2:31 পূর্বাহ্ন

  13. I don’t believe it , গুরু অসাধারণ সতত শুভকামনা।

    ihraful@yahoo.com'

    ismail
    আগস্ট 28, 2011 at 9:21 পূর্বাহ্ন

  14. I don’t believe it বলে কী বুঝাতে চেয়েছেন, বুঝলাম না। অনেকদিন পর মন্তব্যটি গোচরীভূত হলো, সেজন্য দুঃখ প্রকাশ ছাড়া আর কোনো গত্যন্তর নেই।
    কবিতা পাঠের জন্য কৃতজ্ঞতা।
    ভালো থাকুন।
    শান্তি।

    রাজন্য রুহানি
    সেপ্টেম্বর 18, 2011 at 5:42 পূর্বাহ্ন

মন্তব্য করুন