আফসার নিজাম

ফেসবুককাব্য

ফেসবুককাব্য-১১০ আচ্ছা আর কাব্য নয় এবার আমরা গদ্যো হবো জীবনতো আর পদ্য নয় জীনতো এক গদ্যলেখা ছন্দ ছাড়া মাত্রা ছাড়া বালুকাময় মরুভূমি উত্তাল ঢেউ সাগরের উচু নিচু পাহাড় ভূমি। আচ্ছা আর কাব্য নয় এবার আমরা গদ্যো হবো ফেসবুককাব্য-১১১ কবিতার শরীরর জুড়ে যে সৌন্দর্য খেলা করে তার স্পর্শ আমাকে ছুঁযে যায় আমাকে আপ্লুত করে আমি কেবলি ছুটে যাই ছুটে যাই ছুটে যাই ছুটে যাই ফেসবুককাব্য-১১৩ মোলাকাত আজ অচিন পাখি যতোই তারে পরাও রাখি দিলের মাঝে দিল ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

ফেসবুককাব্য

ফেসবুককাব্য-১০৭ তুমি যদি ফুল হও আমি ফুলদানী আমি যদি রাজা হই তুমি হও রাণী আমাদের প্রেমফুল এভাবেই ফুটে জোসনার আলো হয়ে নীলচাঁদ উঠে। ফেসবুককাব্য-১০৮ চোখের সীমান জুড়ে যে অশ্রু খেলা করে তার প্রতিটি দুঃখ কণা মেলে দেয় ডানা আমি সেই চোখ ছুঁয়ে বলি ফিরে এসে ঘরে তোমায় ভালোবাসি ওগো প্রিয় খন্জনা। ফেসবুককাব্য-১০৯ ঘুর্ণয়মান সময় ফিরে আসে কবুতর ডানা মেলে দারে এসে চিঠি দিয়ে বলে- তুমি আছো জেলে একদিন ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

ফেসবুককাব্য

ফেসবুককাব্য-১০৪ একটি পাতাও যদি ঝরে আঙিনায় দেয়ালের ছবি যদি রঙ মুছে যায় মনে রেখো আমার এই স্পর্শখানি একদিন আমি ছিলাম রঙদানী। ফেসবুককাব্য-১০৫ প্রিয়ার হরিণচোখ যতোই খাঁটি সেই চোখ থেকে যদি ঝরে মুক্তারশি তবু কাছে টানে তার ক্রিস্টাল হাসি বৃষ্টির পানি যেমন শুষে নেয় মাটি। ফেসবুককাব্য-১০৬ জীবন যদি হয় সরল রেখায় অভিজ্ঞতার ঝুলি থাকে খালি আঁকা বাঁকা পথে যদি জীবন চলে অভিজ্ঞতা থাকে হালি হালি। জীবনের ভেতর যদি জীবন দিয়ে ভালোবাসা বাঁধা ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

চাঁদ

আফসার নিজাম একটা কিছু দেখি আমি একটা কিছু দেখি সন্ধ্যা যখন ঘোমটা দিয়ে আসে রঙ তুলিতে রাঙিয়ে আকাশ মিষ্টি করে হাসে নীল পাখিরা গানের সুরে সুরে ডিগবাজী খায় হাওয়ায় উড়ে উড়ে। ঠাঁয় দাঁড়িয়ে আমি যখন দেখি একটা কিছু দেখি আমার সাথে পাড়ার ছেলে-মেয়ে চোখ মেলে চায় দূরে বিশাল আকাশ ফুরে বহুদিনের স্বপ্নগুলো উড়ে নীল আকাশটা রাঙিয়ে দিলো রঙে বাহারী এক ঢঙে ঢঙের মাঝে রঙের মাঝে একটা কিছু আঁকা হ্যাঁ হ্যাঁ একটুখানি বাঁকা চাঁদ উঠেছে পিপুল গাছের ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

ফেসবুককাব্য

ফেসবুককাব্য-১০১ প্রতিদিন তোমার সাথে কথা হয় প্রতিদিন মোবাইলে থাকি কাছাকাছি প্রতিদিনি কেনো যেনো ভয় হয় কাছে থেকেও কতো দূরে আছি। ফেসবুককাব্য-১০২ প্রতিদিন কোথা থেকে উড়ে আসে পাখি তার হাতে কোন ভুলে এ হাত রাখি হাত রেখে প্রতিদিন নিজেকে হারাই জানি না কোন ভুলে তার পাশে দাঁড়াই। ফেসবুককাব্য-১০৩ নান্দকি শেষ পাতাটিও একদিন হরিৎ রঙ ধারন করবে সময়ের শেষ চিহ্নটুকু মুছে দিতে সামনে দাঁড়াবে আজরাইল প্রতিটি প্রেমময় সময় রঙ হারিয়ে ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

বৃষ্টির কয়েন

করমজান বিবিকে গ্রামের কে না চিনে? তবে করমজান বিবি নামে না- চিনে দছক বলে। দছক বললে শুধু এই গ্রাম না আশ-পাশের তিন গ্রামের লোকে চিনে। সলিমের বাপ তাকে মোমেনশাহী থেকে নিকাহ করে আনে। বুড়া বউ মরার বছর না পেরুতেই এই কান্ড ঘটাবে গ্রামের কোনো লোকেরই মালুম ছিলো না। সবাইকে অবাক করেই সে ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

কান্না

কান্না প্রথমে আস্তে, তারপর ধীরে ধীরে সংক্রমিত হয় সবার মাধ্যে। এ ঘর থেকে ও ঘর হয়ে গোটা মহল্লা মোবাইল নেটওয়ার্কের মতো নিজের কব্জায় নিয়ে নেয় শব্দটি। মহল্লার লোকজন যেনো ওয়াকিবহাল ছিলো, আওয়াজটা শুনতে পাবে। এজন্য সবার চেহরায় একটি প্রশ্নবোধক চিহ্ন ফুটে উঠতো নিজেদের অজান্তেই। প্রতিদিনই তারা খোঁজ নেয়ার জন্য প্রশ্ন ছুঁড়ে দিত- `খবর ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

খোয়াব

খোয়াব সোবেহ সাদেক। আসমানের দিকে তাকিয়ে আন্দাজ করে রহমত আলী। আজানের অল্প বাকি। এই সময়ের খোয়াব মিথ্যা হয় না। এই সময় আল্লাহ প্রথম আসমানে আইসা বান্দাগো ডাকতে থাকে। ও আমার বান্দারা তোমরা আমার কাছে চাও। আমি রহমত লইয়া বইসা আছি তোমাগো দেওনের লাইগা। তোমরা আমার কাছে চাও। এমন সময় আল্লাহর বান্দারা ঘুমায়। আবার ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

ঠাকুরের জন্য পদ্য

ঠাকুরের জন্য পদ্য ঠাকুর আজ আমাদের শ্রাবণে প্রবেশ করেছে ঠাকুর আজ আমাদের বৃষ্টিতে ভিজে গেছে ঠাকুর আজ আমাদের নদীতে থৈ থৈ করে ঠাকুর আজ আমাদের পানশীতে গেছে ঠাকুর তুমি কোন মাটি দিয়ে হেঁটেছ ঠাকুর তুমি কোন চাষের জমি নিয়েছ ঠাকুর তুমি কোন গাছের তলে ছায়ায় ছিলে ঠাকুর তুমি কোন দান দিয়েছ ঠাকুর তুমি আবার এসো আমাদের গ্রামে ঠাকুর তুমি আবার এসো আমাদের মজলিশে ঠাকুর তুমি আবার ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

ছড়াকার ফারুক হোসেনের সাক্ষাৎকার: শিশুসাহিত্য মার্জিত ও পরিচ্ছন্ন সাহিত্য ।। সাক্ষাৎকার গ্রহণ : আফসার নিজাম

শিশুসাহিত্য মার্জিত ও পরিচ্ছন্ন সাহিত্য ছোট্ট একটি মনের জন্য যে মন কেঁদে ওঠে, আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে ওঠে, নেচে ওঠে বৃষ্টির মতো সেই মানুষটি একজন শিশু মানুষ। শিশু মনের মানুষ। ছোটদের মনকে ভালোবেসে কখনোই বড় হয়ে ওঠেনি, কুটিল হয়ে ওঠেনি, জটিল হয়ে ওঠেনি। রয়ে গেছেন ছোট বুলবুলিটির মতো, রয়ে গেছেন কুঁড়ির মতো, রয়ে গেছেন ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

যুদ্ধ

যুদ্ধ সন্ধি নয় যুদ্ধ, যুদ্ধের জন্য যুদ্ধ? শান্তির জন্য যুদ্ধ কৃষক যে বীজ বুনে দিলো তার নাম যুদ্ধ বীজ ফেটে যে অঙ্কুরোদগম হলো তার নাম যুদ্ধ যে যুবক অজানার দিকে হেঁটে চললো তার নাম যুদ্ধ যে কিশোরী যুবতী হওয়ার আগেই যুবতী হলো তার নাম যুদ্ধ গ্রেনেড ছোঁড়ার নাম যুদ্ধ, গ্রেনেডে পা উড়ে যাওয়ার নাম যুদ্ধ বুলেট ছোঁড়া যুদ্ধ, বুলেটের সামনে দাঁড়িয়ে যাওয়া ...

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

ইশকের বয়ান

ইশকের বয়ান এক জুলেখা আঁধারে ঝড় হয় ছিঁড়ে যায় লজ্জা পড়ে থাকে সবুজ শার্ট সেলাই বিহীন। দুই তুলতুলে রাত বেয়ে নেমে আসে আয়েশা রাত আঁধারের বুকে জ্বলে নূরের গেলাব। তিন দৃষ্টির মেঘ হয়ে উড়ে আসে রাবেয়া সময় জিকিরে জিকিরে ভাসে তার ইশকের বয়ান। http://afsarnizam.wordpress.com/ http://afsarnizam.blogspot.com/

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

আলো

আলো তুমি ভাবো হয়নি সকাল ‘সকাল কেনো হবে?’ আমি ভাবি ‘রাতের ভেতর রাত্রী কেনো রবে।’ রাতের ভেতর আঁধারগুলো গুটগুটে রঙ কালো আমি ভাবি ‘আসবে কবে বিহান বেলার আলো।’ আলোরকণা নূরের বাতি সকল প্রাণে জ্বলে প্রাণের যতো আঁধার কালো যাচ্ছে কুপির তলে। কুপির তলে অন্ধকারে কেউ থাকে না ভালো লক্ষ প্রাণের হৃদয় হতে আলোর বাতি জ্বালো। http://afsarnizam.wordpress.com/ http://afsarnizam.blogspot.com/

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark

গ্রহণকাল

গ্রহণকাল এ এক গ্রহণকাল- মানুষ আর বিশ্বাস স্থানপন করছে না নিজের প্রতি নিজেকে আর আপন মনে করছে না ক্রমাগত ভেঙে যাচ্ছে নিজের ভেতর ক্রমাগত বিদ্রোহ করছে নিজের প্রতি ক্রমাগত যুদ্ধ করছে নিজের সাথে। হায় সময়- আমাকে তুমি আর আমার আয়নায় দেখছো না আমায়। নিজের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে- কবে কবে বিজয়ী হবো কবে বিশ্বাসের সাথে উচ্চাণর করবো এই যে আমি আমি একজন মানুষ আমার একটা ইতিহাস আছে। http://afsarnizam.wordpress.com/ http://afsarnizam.blogspot.com/

  • Facebook
  • Twitter
  • Share/Bookmark